kalerkantho


শেখ হাসিনার বই আসছে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



শেখ হাসিনার বই আসছে

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার লেখা নতুন একটি বই আসছে। বইটির নাম ‘নির্বাচিত প্রবন্ধ’।

বাংলাদেশের সমকালীন রাজনীতির ওপর বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত তাঁর লেখা ১৩টি প্রবন্ধ রয়েছে এই বইয়ে। আজ বুধবার মেলার প্রথম দিন থেকেই ১৩ নম্বর প্যাভিলিয়নে বইটি পাওয়া যাবে। আজ বিকেল ৩টায় বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৭-র উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশি-বিদেশি কবি-সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক, প্রকাশক ও বরেণ্য ব্যক্তিত্বরা উপস্থিত থাকবেন।

শেখ হাসিনার ‘নির্বাচিত প্রবন্ধ’ গ্রন্থের ভূমিকায় ইমেরিটাস অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম লিখেছেন, “লেখক হিসেবে শেখ হাসিনা মূলত প্রাবন্ধিক, বিশেষভাবে বলতে গেলে রাজনৈতিক ভাষ্যকার। তাঁর ‘নির্বাচিত প্রবন্ধ’ সংকলন গ্রন্থটি বর্তমান বাংলাদেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের চিন্তা-চেতনা, মন-মানসিকতা ও দৃষ্টিভঙ্গির পরিচয় বহন করে। সে কারণেই এ গ্রন্থটির গুরুত্ব অপরিসীম। ”

সংকলনের প্রথম প্রবন্ধ ‘বাংলাদেশে স্বৈরতন্ত্রের জন্ম’। ১৯৯৩ সালে লেখা এই প্রবন্ধটিতে বাংলাদেশে স্বৈরাচারের উদ্ভব ও বিকাশ সম্পর্কে একজন রাজনীতিবিদের প্রত্যক্ষ পরিচয় ফুটে উঠেছে।

‘শিক্ষিত জনশক্তি অর্থনৈতিক উন্নয়নের পূর্বশর্ত’ প্রবন্ধে তিনি বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থার সমস্যাকে চিহ্নিত করেছেন। ১৯৯৩ সালে লেখা ‘সবার উপরে মানুষ সত্য’ প্রবন্ধে শেখ হাসিনা ১৯৪৮ সালে জাতিসংঘের মানবাধিকার ঘোষণা সত্ত্বেও বিশ্বযুদ্ধোত্তর পৃথিবীতে দেশে দেশে মানুষে মানুষে এবং একই দেশে শ্রেণিবিভক্ত সমাজে মানবতার যে চরম অবমাননা তার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

ভাষা আন্দোলনের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে লেখা ‘ভালবাসি মাতৃভাষা’, ২০০২ সালে প্রকাশিত ‘বিপন্ন গণতন্ত্র লাঞ্ছিত মানবতা’, ১৯৯৮ সালে ৩২ নম্বর ধানমণ্ডির বাড়ি নিয়ে লেখা ‘স্মৃতি বড় মধুর স্মৃতি বড় বেদনার’, বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন নিয়ে ২০০১ সালে লেখা ‘সংগ্রামে আন্দোলনে গৌরবগাথায়’, ১৯৯৯ সালে লেখা ‘বৃহৎ জনগোষ্ঠীর জন্য উন্নয়ন’, ‘সহে না মানবতার অবমাননা’, ‘প্লিজ, সাদাকে সাদা কালোকে কালো বলুন’, ‘একটি স্মরণীয় অভিজ্ঞতা’ এবং ১৯৯১ সালের ১৪ আগস্ট লেখা ‘অনর্জিত রয়ে গেছে স্বপ্নপূরণ’ প্রবন্ধ সংকলিত হয়েছে এই নির্বাচিত প্রবন্ধে।

বইয়ের সর্বশেষ প্রবন্ধ হাইকোর্টের একটি ঐতিহাসিক রায় নিয়ে লেখা ‘সত্যের জয়’, এটি ২০০৫ সালে লেখা। অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের মতে এই প্রবন্ধে আইনের শাসনের প্রতি শেখ হাসিনার গভীর শ্রদ্ধা ও আনুগত্য প্রকাশ পেয়েছে।

‘নির্বাচিত প্রবন্ধ’ গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে ‘আগামী প্রকাশনী’। এর মূল্য রাখা হয়েছে ৩৫০ টাকা। প্রচ্ছদ করেছেন আনওয়ার ফারুক। একই প্রকাশনী থেকে এর আগে শেখ হাসিনার আরো ১৩টি প্রবন্ধ সংকলন গ্রন্থ প্রকাশ হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ‘শেখ মুজিব আমার পিতা’, ‘সাদাকালো’, ‘বিপন্ন গণতন্ত্র, লাঞ্ছিত মানবতা’, ‘দারিদ্র্য দূরীকরণ : কিছু চিন্তাভাবনা’, ‘সহেনা মানবতার অবমাননা’, ‘বাংলাদেশের স্বৈরতন্ত্রের জন্ম’, ‘ওরা টোকাই কেন’, ‘আমরা জনগণের কথা বলতে এসেছি (জাতীয় সংসদে ভাষণ ১৯৮৭-১৯৯৮)’ ‘লিভিং ইন টিয়ার্স’, ‘পিপল অ্যান্ড ডেমোক্রেসি’, ‘ডেমোক্রেসি প্রভার্টি এলিমিনেশন অ্যান্ড পিস’, ‘ডেমোক্রেসি ইন ডিসট্রেস ডিমান্ড হিউম্যানিটি’ এবং ‘জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ (যৌথ সম্পাদনা)।

আগামী প্রকাশনীর মালিক ওসমান গণি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা ‘শেখ মুজিব আমার পিতা’ বইয়ের পঞ্চম সংস্করণও প্রকাশিত হয়েছে। এটিও বইমেলার প্রথম দিন থেকেই আগামীর স্টলে পাওয়া যাবে।

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে আওয়ামী লীগের বই রাষ্ট্রপতির কাছে হস্তান্তর : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্জন-সাফল্য, স্বীকৃতি ও সংগ্রামী অভিযাত্রা নিয়ে রাজনীতিবিদ, কবি-লেখক, সাংবাদিক, শিক্ষাবিদ, অর্থনীতিবিদ, আইনবিদ, নারী উন্নয়ন নেত্রীসহ দেশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বরেণ্য ব্যক্তিদের লেখা নিয়ে বই প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার উপপরিষদ।

‘গণতন্ত্রের বহ্নিশিখা : শেখ হাসিনা’ শীর্ষক বইটি গতকাল সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ উপলক্ষে বইটির সম্পাদনা পরিষদের সভাপতি প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল বঙ্গভবনে যায়। রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মো. জয়নাল আবেদীন এ কথা জানিয়েছেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘বইটি প্রকাশের জন্য আওয়ামী লীগের প্রচার উপপরিষদকে ধন্যবাদ জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, এটি পাঠের মাধ্যমে দেশের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্ম বাঙালির মুক্তি সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম এবং বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নের অভিযাত্রা সম্পর্কে জানতে পারবে।

বইয়ে চিত্র শিল্পীদের আঁকা প্রধানমন্ত্রীর প্রতিকৃতিও রয়েছে। হস্তান্তরের সময় বইটির সম্পাদক আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, সম্পাদনা পরিষদের সদস্য তারিক সুজাত, সুভাষ সিংহ রায়, সাদিকুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। সূত্র : বাসস।


মন্তব্য