kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সেমিনার

বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে নিরপেক্ষ নির্বাচন জরুরি

জাকির হোসেন সুমন, ইতালি   

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশে বৈধ সরকার ক্ষমতায় না থাকায় হত্যা, গুম, রাহাজানি, সহিংসতা চলছে বলে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে আয়োজিত এক আন্তর্জাতিক সেমিনারে আলোচকরা অভিমত জানিয়েছেন। তাঁরা আরো বলেছেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে দেশটিতে নিরপেক্ষ নির্বাচন জরুরি।

১৯ অক্টোবর বুধবার ভয়েস ফর বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, ইউকের যৌথ উদ্যোগে হাউস অব কমন্সে ওই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) প্রতিষ্ঠাকালীন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার।

ভয়েস ফর বাংলাদেশের প্রধান আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, ইউকের প্রতিষ্ঠাতা আতাউল্লাহ ফারুকের পরিচালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন লর্ড নাজির আহমেদ। আলোচনা করেন লর্ড অ্যান্ড্রু স্টানেল, অ্যান্ড্রু স্টিফেনসন এমপি, জনাথন র‌্যানল্ড এমপি, ইয়াসমিন কুরাইসি এমপি, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের বাংলাদেশ ও মালদ্বীপবিষয়ক প্রধান ওল্ফ ব্লমকুইস্ট, হিউম্যান রাইটস ওয়াচের দক্ষিণ এশিয়ার ডিরেক্টর মীনাক্ষী গাঙ্গুলী, কমনওয়েলথের হেড অব ট্রান্সপারেন্সি এলিনর স্টুয়ার্ট প্রমুখ।

ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন না হওয়ার কারণে সরকারের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ১৯৯১ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত জাতীয় নির্বাচনগুলোতে সর্বোচ্চ ৮৭.১৩ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৫৫.৪৫ শতাংশ ভোটার ভোট দেয়। অন্যদিকে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে মাত্র ৫ শতাংশ ভোট পড়ে। ১৫৪ জন সংসদ সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। দেশ-বিদেশে ওই নির্বাচন গ্রহণযোগ্যতা পায়নি।

লর্ড নাজির আহমেদ বলেন, ‘প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্ন দাবি নিয়ে আসেন। এসব দাবির সঙ্গে একমত হলেও আমার একার পক্ষে কিছু করার নেই। তাঁদের প্রতি পরামর্শ, আপনারা ব্রিটিশ বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতাদের একত্রিত করে স্থানীয় এমপিদের কাছে দাবি জানান। তাঁরা পার্লামেন্টে এসব দাবি উপস্থাপন করলে ব্রিটিশ সরকার বাংলাদেশ সরকারকে চাপ দিতে পারে। ’

লর্ড অ্যান্ড্রু স্টানেল বলেন, গণতন্ত্রের স্বার্থে সরকারের উচিত নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করা।

অ্যান্ড্রু স্টিফেনসন বলেন, সব দলের অংশগ্রহণে সংলাপেই হতে পারে বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান।

মীনাক্ষী গাঙ্গুলী বলেন, সামরিক শাসক এরশাদের বিরোধী দলে থাকাটা বাংলাদেশের গণতন্ত্রের জন্য ভালো লক্ষণ নয়।

ওল্ফ ব্লমকুইস্ট বলেন, বাংলাদেশের মানবাধিকার চরম হুমকির সম্মুখীন। সেখানে আইসিটি অ্যাক্ট বাকস্বাধীনতার জন্য হুমকিস্বরূপ।

সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ স্টুডেন্টস ইউনিয়নের আহ্বায়ক এস এইচ সোহাগ, ভয়েস ফর বাংলাদেশ ইউকে শাখার আহ্বায়ক ফয়সাল জামিল, কানিজ ফাতিমা, ফরহাদ হোসাইন প্রমুখ।


মন্তব্য