kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।

সবিশেষ

কৃত্রিম ধমনি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



আর দুই-তিন বছরের মধ্যেই হয়তো বাজারে আসতে চলেছে কৃত্রিম ধমনি। সেটি আবার প্রাকৃতিক নিয়মেই শরীরে বাড়তে থাকবে।

এমনটাই আশা করছে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক রবার্ট ট্রাংকুইল্লোর নেতৃত্বাধীন গবেষকদল। কেননা ভেড়ার ওপর গবেষণা চালিয়ে তারা এরই মধ্যে সাফল্য পেয়েছে। এ-সংক্রান্ত গবেষণাপত্রটি ছাপা হয়েছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সাময়িকী ‘নেচার-কমিউনিকেশনসে’।

যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অনিতা কুলকার্নি বলেন, ‘ভেড়াশাবকের গায়ের চামড়ার কোষের সঙ্গে জিলেটিনের মতো একটি রাসায়নিক পদার্থ (ফাইব্রিন) মিশিয়ে ওই কৃত্রিম ধমনির টিউব বানানো হয়। এরপর টানা পাঁচ সপ্তাহ ভেড়াটির শরীরের কোষ-কলাগুলো একটু একটু করে বাড়িয়ে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টিকর পদার্থ (নিউট্রিয়েন্টস) বায়ো-রিঅ্যাক্টরের মাধ্যমে ওই টিউবে ঢোকানো হয়। বায়ো-রিঅ্যাক্টরের মাধ্যমে স্বাভাবিক ধমনির চেয়ে কৃত্রিম ধমনিকে করা হয়েছে দ্বিগুণ শক্তিশালী। ’

মানুষের শরীরে বসিয়ে এর কার্যকারিতা প্রমাণের পরীক্ষা-নিরীক্ষাও খুব শিগগির শুরু হবে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। সূত্র : আনন্দবাজার।


মন্তব্য