kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জামায়াতের নতুন আমিরের শপথ

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নতুন আমির হিসেবে শপথ নিয়েছেন মকবুল আহমাদ। গতকাল সোমবার সকালে তাঁকে শপথবাক্য পাঠ করান দলের প্রধান নির্বাচন কমিশনার মাওলানা এ টি এম মাসুম।

দলের পক্ষ থেকে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

জামায়াতের বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ রয়েছে। তবে শপথ নেওয়ার পর নতুন আমির বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। রাজধানীর একটি মিলনায়তনে আমির হিসেবে শপথ নেওয়ার পর দেওয়া বক্তব্যে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ করেন। মকবুল আহমাদ বলেন, ‘১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে যেসব সাধারণ মানুষ ও বীর মুক্তিযুদ্ধার বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা ও অকৃত্রিম ত্যাগের বিনিময়ে আমরা স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ পেয়েছি, তাঁদের কথা আজ গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করছি। বিশেষভাবে স্বাধীনতার স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমান, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান, জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী এবং মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল আতাউল গনি ওসমানীসহ বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতাদের আমি সশ্রদ্ধ স্মরণ করছি। ’ জামায়াতের প্রচার বিভাগের স্টাফ এম আলমের সই করা বিজ্ঞপ্তিতে মকবুল আহমাদের লিখিত ভাষণ গণমাধ্যমে পাঠানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জামায়াতের রুকনরা গোপন ভোটের মাধ্যমে ২০১৭-২০১৮-২০১৯ কার্যকালের জন্য মকবুল আহমাদকে দলের আমির হিসেবে নির্বাচিত করেন।

২০১০ সালের জুনে যুদ্ধাপরাধের দায়ে দলের আমির মতিউর রহমান নিজামী গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে মকবুল আহমাদ ভারপ্রাপ্ত আমিরের দায়িত্ব পালন করছিলেন। তিনি জামায়াতের নির্বাচিত তৃতীয় আমির হলেন। তাঁর আগে গোলাম আযম ও নিজামী আমিরের দায়িত্ব পালন করেছেন। একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত গোলাম আযম চিকিৎসাধীন অবস্থায় কারাগারে মারা যান। একই অপরাধে মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকর হয়েছে।


মন্তব্য