kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শি চিনপিং-খালেদা বৈঠক

ভূ-রাজনীতিতে ঢাকাকে পাশে চায় চীন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ভূ-রাজনীতিতে ঢাকাকে পাশে চায় চীন

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ঢাকা সফররত চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের সঙ্গে গতকাল বিকেলে রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে সাক্ষাৎ করেন। ছবি : কালের কণ্ঠ

ভূ-রাজনীতিতে চীন যে ভূমিকা রাখছে, বাংলাদেশ তার পাশে থাকবে—সফররত চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠকে এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন বলে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছেন।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে লা মেরিডিয়ান হোটেলে ৪০ মিনিট ধরে এ বৈঠক হয়।

পরে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, চীনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বৈঠকে দুই দেশের পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বাংলাদেশ সব সময় আশা করে, চীন তাদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সব সময় সহযোগিতা করবে ও পাশে থাকবে। একই সঙ্গে চীনও আশা করে, চীনের যে কর্মকাণ্ড ও ভূ-রাজনৈতিক ক্ষেত্রে চীন যে ভূমিকা পালন করছে বিশেষ করে উন্নয়নের ক্ষেত্রে, বাংলাদেশ তাতে জোরালো সমর্থন জোগাবে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে আলোচনা হয়েছে। চীনের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের অবদানের কথা বৈঠকে উঠে এসেছে বলেও জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বৈঠকে দেশনেত্রী খালেদা জিয়া উল্লেখ করেছেন যে চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হয় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের উদ্যোগে। এর পর থেকেই বাংলাদেশের সঙ্গে চীনের অকৃত্রিম সম্পর্ক স্থাপিত হয়েছে। চীন বাংলাদেশের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অকৃত্রিম বন্ধু। ’

বৈঠক সূত্র জানায়, বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পাদিত ২৭টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক বাস্তবায়নে বিএনপির সহযোগিতা কামনা করেন চীনের প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপিকে চীন গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে বলেই গত সফরেও তিনি খালেদার সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

জবাবে বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়, চীনের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক নিবিড় এবং তারা বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পাদিত সহযোগিতা চুক্তির সফল বাস্তবায়ন চায়। প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঢাকা সফর করেছিলেন শি চিনপিং।  

তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের আড়াই ঘণ্টা পর বিকেল ৫টা ২৫ মিনিটে খালেদা জিয়ার সঙ্গে এ বৈঠক হয়। বৈঠকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়াও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মাহবুবুর রহমান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান সাবিহ উদ্দিন আহমেদ ও চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে চীনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আসা কয়েকজন মন্ত্রী ও ঢাকায় চীনের রাষ্ট্রদূত মা মিং কিয়াং উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে হোটেল স্যুটে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী চীনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। গতকাল সকাল সাড়ে ১১টায় দুই দিনের সফরে ঢাকায় আসেন শি চিনপিং।


মন্তব্য