kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আইএইচএমইর প্রতিবেদন

গত বছর দেশে সর্বোচ্চ মৃত্যু হৃদরোগজনিত মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



গত বছর দেশে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু ঘটেছে হৃদরোগজনিত মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের কারণে। আর সেটা হয়েছে উচ্চ রক্তচাপ থেকে।

এই হার মোট মৃত্যুর ১৬ শতাংশ। এরপর ১৪ শতাংশের মৃত্যু ঘটেছে হৃদযন্ত্রের সমস্যার কারণে। যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের ইনস্টিটিউট ফর হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশনের (আইএইচএমই) এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৪টায় এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

বিশ্বের ১৯৫টি দেশে ৩০০ রোগ নিয়ে এ গবেষণা চলে। এর মধ্যে নতুন নতুন ঝুঁকিকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়। এ ক্ষেত্রে গত বছর বিশ্বব্যাপী নানা রোগে মানুষের মৃত্যুর প্রধান পাঁচটি কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে মারা না গেলেও যারা রোগের ফলে অচল বা অক্ষম হয়ে পড়েছে তাদের বিষয়েও তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরা হয়। প্রতিবেদনে ২৫ বছরে মানুষের আয়ু বৃদ্ধি ও মৃত্যু হারের একটি তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরা হয়।

এতে দেখানো হয়েছে, ২০০৫ সালে বাংলাদেশে নারীদের গড় আয়ু ছিল ৬৮.৭ বছর আর ২০১৫ সালে ছিল ৭২.৫ বছর। পুরুষের ক্ষেত্রে ২০০৫ সালে আয়ু ছিল ৬৫.৭ বছর এবং ২০১৫ সালে তা হয় ৬৮.৫ বছর। তবে এর মধ্যে নারীদের সুস্থভাবে গড় আয়ু ২০০৫ সালে ছিল ৫৮.৬ বছর এবং ২০১৫ সালে ৬২.২ বছর। পুরুষের স্বাস্থ্যকর গড় আয়ু ২০০৫ সালে ছিল ৫৭.৩ বছর আর ২০০১৫ সালে তা হয় ৬০.১ বছর।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ২০১৫ সালে বাংলাদেশে মৃতদের তথ্য যাচাই-বাছাই করে দেখা গেছে প্রধান পাঁচটি মৃত্যুর কারণ ছিল সেরেব্রভারক্যুলার ডিজিজ (১৬ শতাংশ), ইসমেমিক হার্ট ডিজিজ (১৪.৩ শতাংশ), সিওপিডি (৮.২ শতাংশ) ডায়াবেটিস (৫.৪ শতাংশ) এবং লোয়ার রেসপিরেটরি ইনফেকশন (৩.৯ শতাংশ)।

একই প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালে বছরব্যাপী চলাফেরায় অক্ষম অবস্থা কাটানো মানুষের মধ্যে সর্বোচ্চ ১১.৩ শতাংশ কোমর ও ঘাড় ব্যথায়, ৮.৫ শতাংশ মাংসপেশির সমস্যায়, বিভিন্ন অঙ্গ অসাড় ছিল ৮ শতাংশ মানুষের, বিষণ্নতায় ভোগে ৬.৬ শতাংশ মানুষ এবং ৬ শতাংশ আয়রন ঘাটতির ফলে রক্তশূন্যতায় ভোগে।

এ বিষয়ে জাতীয় অধ্যাপক এবং ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ডা. ব্রিগেডিয়ার (অব.) আবদুল মালিক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উচ্চ রক্তচাপের রোগীর হার দেশে মারাত্মকভাবে বেড়েছে। আমরাও আগে থেকেই এ বিষয়ে মানুষকে সচেতন ও সতর্ক করে আসছিলাম। উচ্চ রক্তচাপ থেকে সুরক্ষায় মানুষের লাইফ স্টাইলে অবশ্যই পরিবর্তন আনা জরুরি। ’


মন্তব্য