kalerkantho

সবিশেষ

চুল দান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ছোট্ট শিশু থমাস মোরে। একদিন মায়ের ফেসবুকে ক্যান্সার আক্রান্ত একটি শিশুর কেমোথেরাপিতে চুল হারানোর ছবি দেখতে পায় সে।

ওই শিশুর চুল পড়ে যাওয়া দেখে তখনই নিজের চুল দান করার কথা মাথায় আসে থমাস মোরের। তখন তার বয়স মোটে ছয় বছর।

এর পর থেকেই শুরু হয় তার একটু ‘অন্য রকম’ জীবনযাপন। টানা দুই বছর ধরে নিজের চুল বাড়াতে থাকে থমাস। দুই বছরে অনেকটাই বড় হয়ে গিয়েছিল থমাসের চুল। দুই বছর পর নিজের সব চুল কেটে ফেলে সে। দেখা যায় তার চুলের যা পরিমাণ তাতে একটা-দুটি নয়, অন্তত তিনটি পরচুলা অনায়াসেই বানানো যাবে। এর জন্য সে একটি প্রজেক্ট করে। তার এই পুরো প্রজেক্টটির নাম ছিল, ‘থমাস ফ্রম মেরিল্যান্ড’।

সূত্র : হাফিংটন পোস্ট।


মন্তব্য