kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ট্রাম্পকে দলের পরামর্শ

মনিকা নয় অর্থনীতি ও নিরাপত্তা নিয়ে বলুন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মনিকা নয় অর্থনীতি ও নিরাপত্তা নিয়ে বলুন

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক নিয়ে ‘ঘাঁটাঘাঁটি’ না করতে রিপাবলিকান দলের প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পরামর্শ দিয়েছেন দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা। তাঁকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, বিশেষ করে আগামী ৯ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় দ্বিতীয় বিতর্কে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের স্বামী বিল ক্লিনটনের বিভিন্ন সময় মনিকা লিউনস্কিসহ বিভিন্ন নারীর সঙ্গে সম্পর্কের প্রসঙ্গটি না তুললেই ভালো করবেন তিনি; যদিও বিষয়টি নিয়ে ট্রাম্পের ভাবনা হয়তো কিছুটা ভিন্ন।

প্রথম বিতর্কে ‘ক্লিনটন কেলেঙ্কারি’ না তোলায় ক্ষোভ রয়েছে তাঁর সমর্থকদের মধ্যে। তিনি নিজেও মনে করেন, বিষয়টি না তোলার জন্য যথেষ্ট প্রশংসিত হচ্ছেন না তিনি।

লাগাম ছাড়া মন্তব্যের জন্য খোদ দলের মধ্যে শুরু থেকেই ট্রাম্পকে নিয়ে অস্বস্তি রয়েছে। প্রার্থী হিসেবে তাঁকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়ার পর খুব ধীরে হলেও সে অস্বস্তি কেটে যাচ্ছে। আর এ কারণেই দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা নানা রকম পরামর্শ দিচ্ছেন তাঁকে। গত বুধবার দলের বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা বলেছেন, বিল ক্লিনটনের অতীতের যৌন কেলেঙ্কারি নিয়ে টানাটানি শুরু করলে তা ট্রাম্পের জন্য ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনতে পারে। কারণ ট্রাম্প নিজেও ধোয়া তুলসীপাতা নন। তার চেয়ে বরং অর্থনীতি নিয়ে কথা বলা অনেক সহজ। রিপাবলিকান দলের সিনেটর ডেভিড পেরড্যু বলেন, যে পর্যায়ে তাঁকে টেনে আনা হয়েছে, এ-জাতীয় আলোচনা তাঁর সেই অবস্থান ধসিয়ে দিতে পারে। আর এগুলো (বিল ক্লিনটন প্রসঙ্গ) আজ আর প্রাসঙ্গিক নেই। দিন শেষে ঘরে ফিরে মানুষ অর্থনীতি ও নিরাপত্তা নিয়েই আলোচনা করে।

সিনেটর মাইক রাউন্ডস বলেন, ‘আমি কখনোই এই বিষয়ের সমর্থক ছিলাম না। এখনো নই। এটি ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনতে পারে। ’ তাঁর আশঙ্কা, ক্লিনটনের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক প্রসঙ্গে আলোচনা উল্টো ফল ডেকে আনবে। কারণ ট্রাম্প নিজে বিয়ে করেছেন তিনবার। আর নানা সময় তাঁর বান্ধবীর সংখ্যাও কম ছিল না।

দলের আরেক সিনেটর রজার উইকার বলেন, ট্রাম্পের উচিত সাধারণ শ্রমজীবী আমেরিকানদের জীবনযাত্রার মান কী করে উন্নত হতে পারে তা নিয়ে কথা বলা। প্রথম বিতর্কের পর ট্রাম্প দাবি করেন, দর্শক সারিতে হিলারির মেয়ে চেলসি থাকবেন বলে জানতে পারায় ক্লিনটনের সাবেক প্রেমিকা মডেল জেনিফার ফ্লাওয়ার্সকে আমন্ত্রণ জানাননি তিনি। আশির দশকে ফ্লাওয়ার্সের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল ক্লিনটনের। একই কারণে মনিকা লিউনস্কির বিষয়টিও ওঠেনি। প্রেসিডেন্ট থাকাকালে হোয়াইট হাউসের অ্যাপ্রেন্টিস মনিকার সঙ্গে সম্পর্ক ছিল ক্লিনটনের। এই সম্পর্কের কারণে তাঁকে ইমপিচ করার চেষ্টাও চালানো হয়।

ডেমোক্র্যাট সিনেটর ব্রায়ান স্কাচ বলেন, নারীদের প্রতি আচরণ নিয়ে এমনিতেই ইমেজ সংকটে ভুগছেন ট্রাম্প। আবার নারীদের সমর্থন করে এমন লোকদেরও তিনি পছন্দ করেন না। স্বভাবের কারণে এমনিতেই ভোটার হারাচ্ছেন তিনি। এসব ভোটার সবাই যে খুব প্রগতিশীল তা নয়।

প্রচারে নামার পর থেকেই ইস্যুটি নিয়ে প্রচুর কথা বলেছেন ট্রাম্প। এমনকি এ মন্তব্য করেছেন, যে নারী তাঁর স্বামী ধরে রাখতে পারেন না তিনি দেশ চালাবেন কী করে? দ্বিতীয় বিতর্কে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতেও আগ্রহী তিনি। তাঁর সমর্থকদের একটি বড় অংশেরও দাবি এমনটাই।

রিপাবলিকান দলের আরেক সিনেটর জন থুন অবশ্য মনে করেন, ‘বিষয়টি কী কাজে লাগবে আমি জানি না। লোকে ভোট দেবে প্রার্থী দেখে, প্রার্থীর ওপর আস্থা রাখা যায় কি না সেই বিবেচনায়। ’ জরিপও বলছে একই কথা। এমনকি খোদ রিপাবলিকান পার্টির ৫৬ শতাংশ নিবন্ধিত ভোটার মনে করেন, স্বামীর কাজের জন্য হিলারিকে বিবেচনা করা ঠিক হবে না।

হিলারির স্বাস্থ্য প্রতিবেদন প্রকাশ : হিলারির সর্বশেষ স্বাস্থ্য প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে তাঁর প্রচার শিবির। ৯/১১-এর স্মরণসভার পর এই প্রথম তাঁর স্বাস্থ্য প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো। চিকিৎসকের প্রতিবেদনে বলা হয়, অতিরিক্ত গরম ও পানিশূন্যতার কারণে ওই দিন অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন হিলারি। খুব দ্রুতই সেরে ওঠেন তিনি। তাঁকে কয়েক দিন বিশ্রাম নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। তবে ওই দিন তাঁর অনুষ্ঠানের মাঝপথেই চলে যাওয়াটা ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেয়। এ প্রসঙ্গ ধরেই ট্রাম্প বারবার তাঁর শারীরিক সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

‘প্রেসিডেন্টকে পরিণত হতে হবে’ : ফার্স্টলেডি মিশেল ওবামা বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে একজন পরিণত ব্যক্তিকে প্রয়োজন। ফিলাডেলফিয়ায় সমর্থকদের উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট পদটি আপনার ব্যক্তিত্বকে পাল্টে দিতে পারবে না, বরং আপনি কে এবং কী—সেটাকেই আরো স্পষ্ট করে তুলবে। মিশেল তাঁর ভাষণে ট্রাম্পের নাম না বললেও তাঁর পুরো বক্তব্যটিই ছিল ট্রাম্পকে উদ্দেশ করে। সূত্র : পলিটিকো, এনবিসি, সিএনএন, দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া।


মন্তব্য