kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রূপগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানকে হত্যাচেষ্টা

মামলা হলেও গ্রেপ্তার নেই

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



রূপগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যানকে হত্যাচেষ্টা

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহাম্মেদ আলমাছকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে। দাবি করা ২০ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা মঙ্গলবার বিকেলে সশস্ত্র হামলা চালায় বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানায় মামলা হলেও পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

চেয়ারম্যান তোফায়েল আহাম্মেদ আলমাছ জানান, নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে তিনি এপ্রিল মাসে বিজয়ী হয়েছেন। নির্বাচনের সময় থেকেই স্থানীয় সন্ত্রাসী হানিফ, মোমেন, মোশারফসহ কয়েকজন মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করে আসছিল। টাকা না পেলে বিভিন্নভাবে ঝামেলা করবে বলে হুমকি দিয়েছিল তারা। একপর্যায়ে চাঁদার টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তারা হত্যার হুমকি দেয়। মঙ্গলবার বিকেলে তারা হত্যার উদ্দেশ্যে অস্ত্রসহ হামলা করে। এজাহার সূত্রে জানা গেছে, আলমাছ চেয়ারম্যান মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে মঠেরঘাট ভূমি অফিসের সামনে অবস্থান করছিলেন। ভাতিজা ফরিদ ও কর্মী এজাজ দআহাম্মেদের সঙ্গে তিনি কথা বলছিলেন। আকস্মিক সেখানে মোটরসাইকেল নিয়ে উপস্থিত হয় সন্ত্রাসীরা। হানিফ ও মোশারফ চেয়ারম্যানের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গালাগাল করতে থাকে। এজাজ ও ফরিদ বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা তাঁদের পিটিয়ে জখম করে। তাঁদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা এজাজের কাছে থাকা ৫০ হাজার টাকা ও ফরিদের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে চলে যায়। পরে এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

মঙ্গলবারের এ ঘটনার পর চেয়ারম্যান তোফায়েল আহাম্মেদ আলমাছ বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এজাহারে তিনি ২০ লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে এ হত্যার চেষ্টা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন। মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হানিফ মোল্লা ভাণ্ডাবো এলাকার মৃত কফিল উদ্দিনের ছেলে, মোমেন মঙ্গলখালী এলাকার মৃত ইদ্রিস আলীর ছেলে ও মোশারফ দড়িকান্দি এলাকার মৃত আশরাফুল্লাহর ছেলে।

রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। দুই মাস আগেও একটি চাঁদাবাজ গ্রুপ ভূমি অফিসের সামনে ফাঁকা গুলিবর্ষণ করেছিল আতঙ্ক তৈরির জন্য।


মন্তব্য