kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সবিশেষ

নেকড়ের জঙ্গলেও অক্ষত শিশু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



কুকুরছানার পিছু ছুটতে ছুটতে সাইবেরিয়ার ঘন তৈগার জঙ্গলে ঢুকে পড়েছিল সদ্য হাঁটতে শেখা শিশু। সে জঙ্গল যেনতেন জঙ্গল নয়! নেকড়ে আর ভালুকে ভরা।

কনকনে ঠাণ্ডা। রাতে রীতিমতো বরফ পড়ে। তবে সব বাধাই তুচ্ছ তিন বছরের এই শিশুর কাছে। নিখোঁজ হওয়ার ৭২ ঘণ্টা পরে সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা গেছে সেই বিস্ময় বালক, সেরিন দপচুতকে।

সাইবেরিয়ার একটি দৈনিকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, তুভা প্রজাতন্ত্রের খুট নামের একটি ছোট গ্রামের ছেলে সেরিন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর বাড়ির কাছেই কুকুরছানার সঙ্গে খেলছিল সে। নজর রাখছিলেন প্রপিতামহী। হঠাৎ তাঁর নজর এড়িয়ে ঘন জঙ্গলের দিকে চলে যায় সেরিন। সম্ভবত কুকুরছানার সঙ্গে খেলতে খেলতেই। জঙ্গলের ভেতর খোঁজার পাশাপাশি আকাশপথেও চলে অনুসন্ধান। তবে বুধবারের আগে খুঁজে পাওয়া যায়নি সেরিনকে। তুভা প্রজাতন্ত্রের প্রধান শোলবান কারা-ওল বলেন, গ্রাম থেকে তিন কিলোমিটার দূরে তার খোঁজ মেলে।

ঘন জঙ্গলে একদম একা ছিল সেরিন। খাবার বলতে ছিল চকোলেটের একটা ছোট বার। গায়ে ছিল না শীতের পোশাকটুকুও। লার্ক গাছের নিচে ডালপালার মধ্যে বিছানা করে ঘুমিয়েছিল ছোট সেরিন। জঙ্গলে পশুর ভয়ও ছিল।

জরুরি সার্ভিসের কর্মকর্তা আয়াস স্যারিগলারের কথায়, ‘শীতকাল আসছে। এই সময় ভালুকরা খাবার মজুদ করে। তাই এমনি সময়ের থেকে বেশি হিংস্র হয়। কোনো কিছু নড়তে দেখলেই তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। আর নেকড়েও আছে। তবে আশ্চর্যের বিষয়, সেরিনের গায়ে একটা আঁচড়ও পড়েনি। ’

সেরিনের গ্রামে এখন উৎসবের আমেজ। তার ফিরে আসার আনন্দে গোটা গ্রাম মাতোয়ারা। গ্রামবাসী তার নাম দিয়েছে ‘মোগলি’। সূত্র : আনন্দবাজার।


মন্তব্য