kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দেশে ফিরেছেন খালেদা জিয়া

বিমানবন্দরে স্বাগত জানায় নেতাকর্মীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০




দেশে ফিরেছেন খালেদা জিয়া

পবিত্র হজ পালন করে দেশে ফিরেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা ১০ মিনিটে এমিরেটস এয়ারলাইনসের বিমানে করে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তিনি।

চেয়ারপারসনকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানানোর জন্য বিমানবন্দরের বাইরে কয়েক হাজার নেতাকর্মী সড়কের পাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিল।

মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, আবদুল্লাহ আল নোমান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরী, শাহজাহান ওমর, মজিবর রহমান সরোয়ার, খায়রুল কবীর খোকন, নুরে আরা সাফা, শামা ওবায়েদ, শিরিন সুলতানা প্রমুখ সে সময় উপস্থিত ছিলেন।

ভিআইপি লাউঞ্জের বাইরে পুলিশের ব্যারিকেডের মধ্যে কিছু নেতা অপেক্ষায় ছিলেন। প্রথমে তাঁরা বিএনপি চেয়ারপারসনকে শুভেচ্ছা

জানান। বিমানবন্দরের গোল চত্বর থেকে খিলক্ষেত পর্যন্ত সড়কের বাম পাশে হাজার হাজার নেতাকর্মী করতালি ও স্লোগান দিয়ে খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানায়।

বিমানবন্দরের প্রবেশপথে পুলিশ ব্যারিকেডের সমালোচনা করে মির্জা আব্বাস বলেন, বিএনপি একটি বড় গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। তার নেত্রীকে দেশবাসী চেনে, সরকারও চেনে। তার পরও সরকার এভাবে বাধা দিল, এটা কোনো রাজনৈতিক শিষ্টাচারের মধ্যে পড়ে না। তিনি বলেন, ‘আমরা কখনো সরকারের কাছ থেকে সম্মানজনক ব্যবহার পাইনি, এটা দুঃখজনক। ’

খালেদা জিয়ার আগমন উপলক্ষে বিমানবন্দরের প্রবেশপথে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। সেখান থেকে বেরিয়ে গাড়িবহর নিয়ে তিনি গুলশানে তাঁর বাসভবনের দিকে রওনা হন। সে সময় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়।

বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব আবদুস সাত্তার, আলোকচিত্রী নুরুউদ্দিন আহমেদ, গৃহকর্মী ফাতেমা বেগম এবং অন্য সফরসঙ্গীরা হজ করে একই বিমানে করে দেশে ফেরেন।

প্রসঙ্গত, হজ করার জন্য গত ৮ সেপ্টেম্বর সৌদি আরবের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন খালেদা জিয়া। কাছাকাছি সময়ে লন্ডন থেকে যাত্রা করে জেদ্দায় তাঁর সঙ্গে যোগ দেন বড় ছেলে তারেক রহমান, ছেলেবউ জোবাইদা রহমান, নাতনি জাইমা রহমান এবং প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি।

সৌদি বাদশার আমন্ত্রণে রাজকীয় অতিথি হিসেবে খালেদা জিয়া ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা হজ করেন বলে বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এই নিয়ে তিনবার হজ করলেন খালেদা জিয়া। ১৯৯১ সালে প্রধানমন্ত্রী এবং ১৯৯৭ সালে বিরোধীদলীয় নেত্রী থাকার সময়ও তিনি হজ করেন। তবে প্রায় প্রতিবছর রোজার সময় ওমরাহ করেন তিনি। তারেক রহমান, জোবাইদা রহমান, জাইমা রহমান এবং শর্মিলা রহমান সিঁথির এটি প্রথম হজ। ২০১৪ সালে তাঁরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে ওমরাহ করেন। জোবাইদার মা, বোন ও বোনের স্বামীও এবার হজ করেছেন।


মন্তব্য