kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দৌলতদিয়া ঘাটে আটকা দুই হাজার গাড়ি

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



দৌলতদিয়া ঘাটে আটকা দুই হাজার গাড়ি

গ্রামের বাড়িতে প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি শেষে কর্মজীবী মানুষ ফের ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছে। তাই গাড়ির চাপ বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ঘাট ও ফেরি সংকটে গতকাল শুক্রবার দৌলতদিয়া ঘাটে নদীপারের অপেক্ষায় আটকে পড়ে বাস, মাইক্রোবাস, প্রাইভেট কারসহ দুই সহস্রাধিক বিভিন্ন গাড়ি।

এতে ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের গোয়ালন্দ জমিদার ব্রিজ এলাকা পর্যন্ত আট কিলোমিটার রাস্তায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডাব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট অফিস সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার দুপুরের পর থেকে ঢাকাগামী বিভিন্ন গাড়ির চাপ অত্যধিক বেড়ে গেছে। এদিকে গত রবিবার বন্ধ হওয়া ২ নম্বর ঘাটটি আর চালু করা সম্ভব হয়নি। তা ছাড়া পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোত থাকায় ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌ রুটের বহরে মোট ১৯টি ফেরি রয়েছে। এর মধ্যে কয়েক মাস ধরে মাধবীলতা নামের একটি ইউটিলিটি ফেরি বিকল হয়ে পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানা মধুমতীতে পড়ে আছে। নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডে রয়েছে রো রো (বড়) ফেরি খানজাহান আলী। ইঞ্জিন দুর্বল হয়ে পড়ায় বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান, বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান ও হাসনাহেনা নামের অন্য তিনটি ফেরি স্রোতের প্রতিকূলে চলাচল করতে পারছে না। তাই দুর্বল ওই তিন ফেরি পাটুরিয়া ঘাটে ভিড়িয়ে রাখা হয়েছে।

বিআইডাব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ফেরি ও ঘাট সংকটের পাশাপাশি ঢাকাগামী গাড়ির চাপ অত্যধিক বেড়ে যাওয়ায় শুক্রবার দুপুরের পর থেকে দৌলতদিয়া ঘাটে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।


মন্তব্য