kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ত্যাগের মহিমায় উদ্‌যাপিত পবিত্র ঈদুল আজহা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ত্যাগের মহিমায় উদ্‌যাপিত পবিত্র ঈদুল আজহা

কোলাকুলির এই দৃশ্য ঈদের দিন জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম প্রাঙ্গণে। ছবি : কালের কণ্ঠ

উৎসবমুখর পরিবেশে, ত্যাগের মহিমায় ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা গত মঙ্গলবার সারা দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপন করেছেন। বৃষ্টি মাথায় নিয়েই আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য তাঁরা ঈদগাহে সমবেত হন।

পরে পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে ঈদের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন।

গত ঈদুল ফিতরের দিন সকালে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠের কাছে ও এর কয়েক দিন আগে গুলশানের রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার বিষয়টি মাথায় রেখে এবার সারা দেশে ঈদ জামাতের স্থানগুলোতে ছিল বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ফলে এবার দেশের কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

ঈদের দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ আদায়ের মধ্য দিয়ে দিনটি শুরু হয়। সব ভেদাভেদ ভুলে সবাই এক কাতারে দাঁড়িয়ে নামাজ আদায় করেন। রাজধানীতে ঈদের প্রধান জামাত জাতীয় ঈদগাহে অনুষ্ঠিত হয়

 সকাল ৮টায়। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা, বিচারপতিরা, ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র সাঈদ খোকনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করে। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে সকাল ৭টা থেকে এক ঘণ্টা পর পর পাঁচটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজ শেষে মুসল্লিরা মহান আল্লাহর কাছে তাঁদের গুনাহ মাফ চেয়ে মোনাজাত করেন।

ঈদের দিন ভোর থেকেই টানা বৃষ্টির কারণে নাকাল হতে হয়েছে রাজধানীবাসীকে। বৃষ্টিতে ঢাকার বেশ কিছু এলাকায় পানি উঠে যাওয়ায় অনেকেই বাড়ি থেকে বের হতে পারেনি। অনেকে বিপাকে পড়ে কোরবানির স্থান নিয়েও। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্ধারিত অনেক স্থান পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সেসব স্থানে পশু কোরবানি করা যায়নি। এ কারণে অনেকে আগের মতোই পশু জবাইসহ আনুষঙ্গিক কাজ সেরেছে সড়কে। তবে সিটি করপোরেশন থেকে দেওয়া সাদা প্লাস্টিকের বস্তায় করে সবাই পশু কোরবানির বর্জ্য ফেলেছে। অন্যবারের তুলনায় তাই এবার রাজধানীর সড়কগুলোয় ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধ তেমন চোখে পড়েনি।

ঈদের দিন বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ ও আমন্ত্রিত অতিথিদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। পবিত্র এ দিনটিকে উৎসবের আমেজ দিতে রাজধানীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও সড়ক দ্বীপগুলোতে জাতীয় ও ঈদ মোবারকখচিত পতাকা দিয়ে সাজানো হয়। কেন্দ্রীয় কারাগারসহ দেশের সব কারাগার, সরকারি হাসপাতাল, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র, বৃদ্ধাশ্রম, শিশুসদন, ছোটমণি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, সরকারি আশ্রয় কেন্দ্র, সেফ হোমস, দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্র এবং শিশু ও মাতৃসদনে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়।

ঈদ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকা এখনো ফাঁকা। রাস্তায় যানবাহনের চাপ নেই। জাতীয় জাদুঘর, চিড়িয়াখানা, শিশুপার্ক, রমনা পার্কসহ বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড় রয়েছে।


মন্তব্য