kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চট্টগ্রামে বস্তিতে ভয়াবহ আগুন মা-মেয়ের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



চট্টগ্রামে বস্তিতে ভয়াবহ আগুন মা-মেয়ের মৃত্যু

চট্টগ্রামে রেলওয়ে বস্তিতে আগুন লেগে ঘুমন্ত অবস্থায় মারা গেছেন মা ও মেয়ে। দগ্ধ হয়েছেন আরেক মা ও তাঁর ছেলে।

গত শনিবার দিবাগত রাতে নগরীর ইপিজেড থানার দক্ষিণ মধ্যম হালিশহরে এই ঘটনা ঘটে। বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকে সূত্রপাত হওয়া এই আগুন প্রায় সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে আসে।

নিহত দুজন হলেন ফাতেমা বেগম (২৭) ও তাঁর সাড়ে তিন বছরের মেয়ে মারজান। ফাতেমার গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুরের ভবানীরচর এলাকায়। তাঁর স্বামীর নাম মো. মিজান।

দগ্ধ হয়েছেন শিল্পী বেগম (৩০) তাঁর ছেলে সাব্বির। তাঁদের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসকরা বলেছেন, দুজনই শঙ্কামুক্ত।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, রাত সোয়া ৩টার দিকে ইপিজেড বাইলেনের রেললাইনের পাশের রেলওয়ে বস্তিতে আগুন লাগে। মুহূর্তের মধ্যে আগুন পুরো বস্তিতে ছড়িয়ে পড়ে। ঘুমন্ত অবস্থা থেকে জেগে ওঠা লোকজন দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করতে থাকে। আগুনের লেলিহান শিখা কয়েক শ ফুট উপরে ওঠে। এ সময় আশপাশের মানুষের মধ্যেও আতঙ্ক দেখা দেয়।

এরপর খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৩টার দিকে চট্টগ্রাম ইপিজেড (রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল), বন্দর ও আগ্রাবাদ থেকে ফায়ার সার্ভিসের ৯টি পানিবাহী গাড়ি নিয়ে কর্মীরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। কিন্তু এর মধ্যেই ১২টি দোকান ও বস্তির অনেক ঘর পুড়ে যায়। প্রায় সবাই ঘর থেকে বের হতে সক্ষম হলেও ফাতেমা বেগম ও তাঁর সাড়ে তিন বছরের কন্যাসন্তান মারজান ঘুমন্ত অবস্থায় মারা যায়।

গতকাল রবিবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. ইয়াহিয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকে এ আগুনের সূত্রপাত। আগুন নেভানোর পর মা ও মেয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়। ’

আগুনে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ছয় লাখ টাকা বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে।


মন্তব্য