kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সন্ত্রাসবিরোধী লড়াইয়ে এশিয়ায় ৪৪ কোটি ডলার দেবে জাপান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সন্ত্রাসবিরোধী লড়াইয়ে এশিয়ায় ৪৪ কোটি ডলার দেবে জাপান

জঙ্গি ও সন্ত্রাসবিরোধী লড়াই জোরদার করার লক্ষ্যে এশিয়ার দেশগুলোকে ৪৪ কোটি ডলার (প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা) অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে জাপান। গতকাল বুধবার জাপানের প্রধানমন্ত্রী সিনজো আবে এ ঘোষণা দেন বলে তাঁর সরকারের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন।

ওই মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, লাওসে অনুষ্ঠেয় অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনসের (আসিয়ান) সম্মেলনে সিনজো আবে এ ঘোষণা দিয়েছেন।

রয়টার্স জানায়, জাপানের প্রধানমন্ত্রীর বরাত দিয়ে দেশটির ডেপুটি চিফ কেবিনেট সেক্রেটারি কইচি হাগিউদা বলেছেন, ‘এশিয়ায় জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমরা সব সময়ই সমর্থন দিয়ে যাব। এর জন্য আগামী তিন বছরে অনুদান হিসেবে আমরা ৪৫ বিলিয়ন ইয়েন (৪৪০ মিলিয়ন ডলার) সহায়তা দেব। ’

এশিয়ার কোন কোন দেশকে ওই অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হবে, তা সুনির্দিষ্ট করে বলা হয়নি। তবে অনুদান যারা পাবে, সেই রকম সম্ভাব্য দেশের মধ্যে যে বাংলাদেশ থাকবে, তা রয়টার্সের প্রতিবেদনেই আভাস দেওয়া হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তের নিজ শহরে বোমা হামলা চালিয়ে ১৪ জনকে হত্যা করেছে আইএস জঙ্গিরা। এর আগে জুলাইয়ে এরা বাংলাদেশের রাজধানীর একটি ক্যাফেতে হামলা চালিয়ে ২২ জনকে হত্যা করে।

গত ১ জুলাই রাতে ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গিরা হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২২ জনকে হত্যা করে। নিহতদের মধ্যে সাতজন জাপানি, ৯ জন ইতালীয়, একজন ভারতীয় এবং দুই পুলিশসহ পাঁচজন বাংলাদেশি। পরদিন ভোরে সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে যৌথ অভিযানে পাঁচ জঙ্গিসহ ছয়জন নিহত হয়। এ হামলার দায় স্বীকার করে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামী স্টেট (আইএস)। নিহত সাত জাপানি হলেন তানাকা হিরোশি, ওগাসাওয়ারা, শাকাই ইউকু, কুরুসাকি নুবুহিরি, ওকামুরা মাকাতো, শিমুধুইরা রুই ও হাশিমাতো হিদেইকো। এর মধ্যে ছয়জনই মেট্রো রেল প্রকল্পের কাজের জন্য বাংলাদেশে এসেছিলেন।

গুলশানের ঘটনার পর অনেকেই ধারণা করছিলেন, এর জের ধরে বাংলাদেশের সঙ্গে জাপানের সম্পর্কে চিড় ধরতে পারে, বন্ধ হয়ে যেতে পারে জাপানি সাহায্য সংস্থা জাইকার অর্থায়নে চলা প্রকল্পগুলো। কিন্তু ঘটনার পরপরই জাপান সরকার স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছে, তারা সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে, সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাবে। পরে জাইকাও ঘোষণা দেয়, তারাও বাংলাদেশের উন্নয়নে সব সময় পাশে থাকবে।

 


মন্তব্য