kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মমতার তৃণমূল কংগ্রেস এখন সর্বভারতীয় দল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মমতার তৃণমূল কংগ্রেস এখন সর্বভারতীয় দল

জাতীয় দল হিসেবে সর্বভারতীয় মর্যাদা পেয়েছে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস। এখন থেকে ভারতের যেকোনো রাজ্যে লড়তে পারবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল।

রাজনৈতিক মহলের ধারণা, এই স্বীকৃতি জাতীয় রাজনীতিতে তৃণমূলের গুরুত্ব অনেকটাই বাড়িয়ে দেবে।

ভারতের নির্বাচন কমিশন গত শুক্রবার এ স্বীকৃতি দেয়। এর আগে ভারতে জাতীয় দলের স্বীকৃতি ছিল ছয়টি দলের। তৃণমূলকে নিয়ে এবার সেই সংখ্যা সাত-এ দাঁড়াল। মাদার তেরেসাকে সন্ত ঘোষণা উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বর্তমানে ভ্যাটিকানে অবস্থান করছেন। তিনি রোমে পৌঁছার পর দলের সর্বভারতীয় মর্যাদা পাওয়ার বিষয়টি জানতে পারেন। এর পরই টুইটারে তাঁর উচ্ছ্বসিত প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়। তিনি বলেন, ‘রোমে পৌঁছার পর দারুণ খবর পেলাম। তৃণমূল কংগ্রেস জাতীয় দলের মর্যাদা পেয়েছে। সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলায় পথচলা শুরু আঠারো বছর আগে, ১৯৯৮-এ। তৃণমূলের এই জায়গায় পৌঁছতে সাহায্যের জন্য বিশেষ ধন্যবাদ বাংলা, মণিপুর, ত্রিপুরা, অরুণাচল প্রদেশের মানুষকে। ’

এবার বিধানসভা ভোটের পর জাতীয় দলের স্বীকৃতি চেয়ে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করে তৃণমূল। জাতীয় দল হতে গেলে তিনটি শর্তের একটি পূরণ করতে হয়—অন্তত তিনটি রাজ্য থেকে লোকসভার ২ শতাংশ অর্থাৎ ১১টি লোকসভা আসনে জয়, অথবা লোকসভা বা বিধানসভা নির্বাচনে চারটি রাজ্য থেকে ৬ শতাংশ ভোট এবং চারটি লোকসভা আসনে জয়, অথবা কমপক্ষে চারটি রাজ্যে প্রাদেশিক দলের স্বীকৃতি। তৃণমূল শেষ শর্তটি পূরণ করেছে। পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, মণিপুর ও অরুণাচল প্রদেশে প্রাদেশিক দলের স্বীকৃতি রয়েছে তৃণমূলের।

আড়াই বছরের মাথায় লোকসভা ভোট। জাতীয় রাজনীতিতে বিজেপিকে আটকাতে এরই মধ্যে জোট তৈরির আভাস দিয়েছে তৃণমূল, সমাজবাদী পার্টির মতো আঞ্চলিক দলগুলো। এই পরিস্থিতিতে জাতীয় দলের মর্যাদা পাওয়ায় অন্য আঞ্চলিক দলগুলো থেকে রাজনৈতিক শক্তির পাশাপাশি মানসিকভাবেও তৃণমূল এক ধাপ এগিয়ে থাকল বলেই মনে করছেন দলীয় নেতৃত্ব। সূত্র : আনন্দবাজার, জিনিউজ।


মন্তব্য