kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দেশকে আফগানিস্তান বানানোর ষড়যন্ত্র চলছে : ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



আওয়ামী লীগ দেশকে আফগানিস্তান, সিরিয়া, লিবিয়ার মতো একটি ব্যর্থ ও জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, সন্দেহভাজন হিসেবে যেসব জঙ্গিকে ধরা হচ্ছে, তাদের কাউকেই বিচারের আওতায় আনা হচ্ছে না।

বন্দুকযুদ্ধের নামে তাদের হত্যা করা হচ্ছে। গতকাল রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। ‘আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমান’ শীর্ষক ওই আলোচনা সভায় তিনি দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মুক্ত করে আনতে হলে সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তারেক রহমানের নবম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে উত্তরাঞ্চল ছাত্র ফোরাম এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি ওয়ান-ইলেভেনের সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর তারেক রহমানকে গ্রেপ্তার করে। পৌনে দুই বছর কারাভোগের পর ২০০৮ সালের ২ সেপ্টেম্বর জামিনে মুক্তি পেয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যে যান তিনি।

আলোচনা সভায় বিএনপির শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক ড. ওবায়দুর রহমানের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা গাজী মাজহারুল আনোয়ার, হাবিবুর রহমান হাবিব, আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সহসাংগঠনিক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল প্রমুখ।

আওয়ামী লীগ জঙ্গিদের প্রশ্রয় দিচ্ছে এমন অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ গভীর ষড়যন্ত্রের জাল বুনছে। তারা এ দেশকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়, জঙ্গি রাষ্ট্র করতে চায়। তারা এ দেশকে আফগানিস্তান, সিরিয়া, লিবিয়ার মতো করতে চায়। কিন্তু আমরা তা হতে দিতে পারি না। ’

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় গিয়ে সব সময় ভিন্নমত দমন করে—এমন অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছে। স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছে। কিন্তু সেই দলটিই গণতন্ত্র ধ্বংস করেছে। এটি তাদের অন্তর্নিহিত চরিত্র। ক্ষমতায় গেলে তারা ফ্যাসিবাদী চরিত্র ধারণ করে। ’

মির্জা ফখরুল বলেন, তারেক রহমানকে অত্যাচার, নির্যাতন করা হয়েছে। তাঁর কোমর ভেঙে দেওয়া হয়েছে। তাঁকে নির্বাসিত জীবনযাপন করতে হচ্ছে। কারণ তিনি বিএনপির পতাকা বহন করছেন। নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ফখরুল বলেন, আলোচনা সভা করে সমস্যার সমাধান করা যাবে না। সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে।


মন্তব্য