kalerkantho


ঢাকার দুই সিটিতে কোরবানির পশুর ২১ হাট প্রস্তুত

► ঈদের তিন দিন আগে অস্থায়ী হাটে বিক্রির অনুমতি
► ৫ শতাংশ হারে হাসিল নির্ধারণ

তোফাজ্জল হোসেন রুবেল   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ঢাকার দুই সিটিতে কোরবানির পশুর ২১ হাট প্রস্তুত

পবিত্র ঈদুল আজহা আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর। আর রাজধানীর অস্থায়ী হাটগুলো বসবে ঈদের তিন দিন আগে। তবে গাবতলী হাটে ইতিমধ্যে আসতে শুরু করেছে কোরবানির পশুর চালান। ছবি : কালের কণ্ঠ

পবিত্র ইদুল আজহা সামনে রেখে এবার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে (ডিএসসিসি) কোরবানির পশুর ২১টি হাট প্রস্তুত করা হয়েছে। গাবতলী ছাড়া বাকি ২০টি হাট অস্থায়ী।

এসবের মধ্যে ডিএনসিসিতে আটটি আর ডিএসসিসিতে ১৩টি হাট বসার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এ ছাড়া দুই সিটির আরো তিনটি হাটের ইজারা স্থগিত রাখা হয়েছে। এসবের মধ্যে দুটি পুরনো ও একটি নতুন। লালবাগে হাজি দেলোয়ার হোসেন খেলার মাঠে একটি এবং মিরপুর সাগুফতা হাউজিং এলাকায় একটি ও বছিলায় একটি হাটের ব্যাপারে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

গত বছরের চেয়ে এবার ৯টি হাট বেড়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, পশু কেনার ক্ষেত্রে নগরবাসীর ভোগান্তি কমাতে হাটের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। এরই মধ্যে গাবতলীর স্থায়ী হাটসহ সব হাটে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে ইজারাদারের পক্ষ থেকে। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে গাবতলীতে কিছু পশু আসা শুরুও হয়েছে ঈদ উপলক্ষে। কোরবানির পশুর মূল চালান আসা শুরু হবে ৬-৭ সেপ্টেম্বর।

ঈদের দিনসহ চার দিন কেনাবেচার নির্দেশনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এ বছর হাসিল নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ শতাংশ। প্রতিদিন হাটে ভ্রাম্যমাণ আদালত, ভেটেরিনারি টিম তৎপর থাকবে। এ ছাড়া সিসি ক্যামেরা, জাল নোট শনাক্তকরণ যন্ত্রসহ ব্যবসায়ীদের জন্য আনুষঙ্গিক সুবিধা নিশ্চিত করছেন ইজারাদাররা।

জানতে চাইলে ডিএসসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা (উপসচিব) খালিদ আহম্মেদ বলেন, ‘ডিএসসিসি এলাকায় আমরা পশুর ১৩টি অস্থায়ী হাট চূড়ান্ত করতে পেরেছি। একটি হাটের তিনবার দরপত্র আহ্বান করেও কাঙ্ক্ষিত মূল্য না পাওয়ায় তা ইজারা দেওয়া সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পত্র দিয়ে দিকনির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

এই কর্মকর্তা আরো বলেন, ‘আমরা কোরবানি উপলক্ষে পশুর হাটে গরু প্রবেশ করানোর সময়সীমা নির্ধারণ করেছি ৭ সেপ্টেম্বর থেকে। পশু বিক্রির জন্য ঈদের দিনসহ চার দিন সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এর আগে কোথাও হাট বসলে তা বে-আইনি হবে। এবার নগরবাসীর পশু ক্রয়ের সুবিধার্থে প্রতিটি হাটে আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালত ও ভেটেরিনারি সার্জন রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। শতকরা পাঁচ টাকা হাসিল নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। ডিএসসিসি কর্তৃক যেসব বিধিবিধান দেওয়া হয়েছে এর বাইরে গেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ’

ডিএসসিসি সূত্রে জানা যায়, মোট ১৪টি হাটের মধ্যে ১৩টি প্রস্তুত করা হয়েছে। হাজারীবাগের ঝিগাতলা মাঠ ইজারা পেয়েছেন মনিরুল হক বাবু, রহমতগঞ্জ খেলার মাট পেয়েছেন শফি আহমেদ, মেরাদিয়া বাজার পেয়েছেন শাহ আলম, ধোলাইখালের সাদেক হোসেন খোকা খেলার মাঠ পেয়েছেন ফরহাদ ভূইয়া বাবু, উত্তর শাহজাহানপুরে খিলগাঁও রেলগেট বাজারসংলগ্ন মৈত্রী সংঘের মাঠ পেয়েছেন হাজি আবদুল লতিফ, ধূপখোলার ইস্ট অ্যান্ড ক্লাব মাঠ পেয়েছেন মোরশেদ আহমেদ চৌধুরী, গোপীবাগ বালুর মাঠসংলগ্ন ব্রাদার্স ইউনিয়নের হাট পেয়েছেন সেলিম, কমলাপুর স্টেডিয়াম ও এর আশপাশের এলাকার হাট পেয়েছেন আমির খান, পোস্তগোলার শ্মশান ঘাটসংলগ্ন খালি জায়গার হাট পেলেন আসাদুজ্জামান রুবেল, ডিএসসিসির মালিকানাধীন যাত্রাবাড়ী কাঁচাবাজারের ভেতরের হাট পেলেন আবু বকর ছিদ্দিক বাকের, কামরাঙ্গীরচর ইসলাম চেয়ারম্যানের বাড়ির মোড় থেকে দক্ষিণ দিকে বুড়িগঙ্গা নদীর বাঁধসংলগ্ন জায়গার হাট পেলেন আবুল হোসেন সরকার। এ ছাড়া শ্যামপুর বালুর মাঠেও ইজারা সম্পন্ন করেছে ডিএসসিসি কর্তৃপক্ষ।

দনিয়া কলেজ মাঠসংলগ্ন খালি জায়গার হাটের ইজারাদার আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘এরই মধ্যে হাটে কয়েকটি গরু এসেছে। আমরা এখনই গরু আনার পক্ষে না। কারণ সিটি করপোরেশন থেকে ৫ তারিখের পরে গরু আনতে বলা হয়েছে। হাটের সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিসি ক্যামেরা স্থাপন, নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক, জেনারেটর ও জাল নোট শনাক্তকরণসহ ব্যবসায়ীদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে। ’

রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটির পক্ষে ইজারা নেওয়া শফি মাহমুদ বলেন, ‘আমাদের হাটে পশু আসা শুরু হবে ৬-৭ তারিখে। এখন মাঠ প্রস্তুত করছি। সব ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ঠেকাতে আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি। আশা করছি ব্যবসায়ীরা আমাদের হাটে এলে কোনো ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হবেন না। ’

ডিএনসিসিতে গাবতলীর স্থায়ী হাট ছাড়া সাতটি অস্থায়ী হাট বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অস্থায়ী হাটগুলো হলো উত্তরা ১৫ ও ১৬ নম্বর সেক্টরের মধ্যবর্তী সেতুসংলগ্ন খালি জায়গার হাট, খিলক্ষেত বনরূপা আবাসিক প্রকল্পের হাট, মিরপুর ৬ নম্বর সেকশনের হাট, ভাসানটেক বেনারসি পল্লী মাঠ ও সংলগ্ন খালি জায়গার হাট, মেরুল বাড্ডা পশুর হাট, আশিয়ান সিটি হাউজিং পশুর হাট, ভাটারা সাঈদনগর পশুর হাট।

ডিএনসিসির সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, গত বছরের তুলনায় কিছু হাটের নামমাত্র মূল্য বাড়িয়ে ইজারা দেওয়া হয়েছে। এ হাটগুলোর ইজারাদারও আগের ব্যক্তিরাই। এ কাজটি একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে করা হয়েছে। ডিএনসিসির রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অর্থের বিনিময়ে কিছু পছন্দের ঠিকাদারকে প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা হাট দিয়েছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়।

ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমরা নিয়ম অনুযায়ী সাতটি হাটের ইজারা দিয়েছি। আরো দুটি হাটের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে পারিনি। স্থানীয় ব্যক্তিদের অভিযোগ থাকায় এই মুহূর্তে বছিলা ও সাগুফতা হাউজিং এলাকায় দুটি হাট নিয়ে চিন্তাভাবনা করতে হচ্ছে। ’

এদিকে ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানীর একমাত্র স্থায়ী হাট গাবতলীতে কোরবানির পশু আসতে শুরু করেছে। এ লক্ষ্যে হাটের সব প্রস্তুতিও সম্পন্ন করেছেন ইজারাদার। ইজারাদারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রায় এক মাস ধরে রাজধানীর সর্ববৃহৎ এ হাট প্রস্তুত করা হচ্ছে। ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সুবিধার জন্য ১০টি কাউন্টারে হাসিল নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ব্যবসায়ীদের থাকা-খাওয়াসহ সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করেছে হাট কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কন্ট্রোল রুম ও ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এখনো কোরবানির পশু কেনাবেচা শুরু হয়নি বলে জানায় হাট কর্তৃপক্ষ।


মন্তব্য