kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পেন্টাগনের দাবি

সিরিয়ায় নিহত আদনানি গুলশান হামলারও পরিকল্পনাকারী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সিরিয়ায় নিহত আদনানি গুলশান হামলারও পরিকল্পনাকারী

সিরিয়ার আলেপ্পোতে নিহত ইসলামিক স্টেট (আইএস) নেতা আবু মোহাম্মদ আল-আদনানি গুলশান হামলাসহ বিশ্বের উল্লেখযোগ্য বেশ কয়েকটি হামলার পরিকল্পনাকারী ছিলেন বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন। ওয়াশিংটনে পেন্টাগনের মুখপাত্র পিটার কুক এ দাবি করেন।

সিরিয়ার আলেপ্পোতে আবু মোহাম্মদ আল-আদনানি নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে আইএস। আইএসের বার্তা সংস্থা ‘আমাক নিউজ এজেন্সি’তে আদনানির মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করা হয়। খবরে বলা হয়, ‘সিরিয়ার আলেপ্পো শহরে সামরিক হামলা প্রতিরোধ করতে গিয়ে এই শীর্ষ নেতার মৃত্যু হয়। ’ এর আগে পেন্টাগনের মুখপাত্র পিটার কুক বলেন, আলেপ্পো প্রদেশের আল-বাব এলাকায় যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী অভিযান চালিয়েছে। তবে ওই হামলায় আদনানি নিহত হয়েছেন কি না সে ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সিরিয়ার আলেপ্পোতে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের অভিযানে নিহত আইএস নেতা আবু মোহাম্মদ আল-আদনানি জঙ্গি সংগঠনটির মুখপাত্র ছিলেন। তবে পিটার কুক দাবি করেছেন, আদনানির ভূমিকা কেবল জঙ্গি সংগঠনটির মুখপাত্র হওয়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না। তাঁর দাবি, গত বছর এবং এ বছরের বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য হামলার ক্ষেত্রে আদনানির ভূমিকা ছিল। কুকের মতে, আইএসের বিদেশি অভিযানগুলোর ‘মূল পরিকল্পনাকারী’ ছিলেন আদনানি। আর এরই অংশ হিসেবে প্যারিস হামলা, ব্রাসেলস হামলা, ইস্তাম্বুল বিমানবন্দরে হামলা এমনকি গুলশান হামলার ক্ষেত্রেও তাঁর বড় ধরনের ভূমিকা ছিল বলে দাবি করেছেন কুক। সিনাই উপত্যকায় রুশ বিমান ভূপাতিত করা এবং আংকারার উপত্যকায় আত্মঘাতী হামলার পেছনেও আদনানির ভূমিকা রয়েছে বলে দাবি করেন পিটার কুক। এসব হামলায় এক হাজার আট শরও বেশি মানুষ নিহত এবং প্রায় চার হাজার লোক আহত হয়। তাঁর মতে, আদনানির মৃত্যুর বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেলে তা আইএসের বিরুদ্ধে অভিযানে বড় সাফল্য বলে বিবেচিত হবে।

কুকের দাবি, আইএস জঙ্গিদের সমন্বিত করার কাজ করতেন আদনানি। আইএসের জন্য সদস্য সংগ্রহ করা ছাড়াও সামরিক ও বেসামরিক ব্যক্তিদের পশ্চিমা নাগরিকদের ওপর ‘এককভাবে হামলা’ (লোন উলফ) চালানোর আহ্বান জানাতেন তিনি।

উল্লেখ্য, অবিশ্বাসীদের ওপর হামলা চালাতে নিয়মিত আহ্বান জানিয়ে আসছে আইএস। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে সিরিয়ার ইদলিবের বাসিন্দা আদনানিও এমন একটি আহ্বান জানিয়েছিলেন। ফরাসি ও মার্কিন নাগরিকদের ওপর বন্দুক বা বোমা ছুড়ে আক্রমণ করার সুযোগ না থাকলে পাথর, ছুরি এমনকি গাড়ি তুলে দিয়ে হলেও আক্রমণ করার জন্য সমর্থকদের পরামর্শ দেন তিনি। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর আল-আদনানিকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী হিসেবে চিহ্নিত করে এবং তাঁর সম্পর্কে তথ্যের বিনিময়ে ৫০ লাখ ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল। আল-আদনানির সর্বশেষ বার্তা শোনা গেছে মে মাসে। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য