kalerkantho

26th march banner

এইচএসসি পরীক্ষা শুরু আজ

প্রশ্ন ফাঁস রোধে দুই উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



এইচএসসি পরীক্ষা শুরু আজ

উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ রবিবার। আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ড মিলে ১০ বোর্ডে এবার এ পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ১২ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮ জন।

প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে আগের বছরগুলোতে নানামুখী ব্যবস্থা গ্রহণের পরও নির্দিষ্ট সময়ের আগেই শিক্ষকদের মাধ্যমে প্রশ্ন বাইরে চলে যাওয়ার অভিযোগ ছিল। আর এমসিকিউ পরীক্ষা পরে হওয়ায় খুব সহজেই প্রশ্নের সমাধান বাইরে থেকে শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছে যেত। এ অপতত্পরতা রোধে এবার দুটি বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এবার পরীক্ষার শুরুতেই নেওয়া হবে এমসিকিউ পরীক্ষা। আর কেন্দ্র সচিবরা সাধারণ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। তবে স্মার্টফোন নিষিদ্ধ। এমনকি ফোনে ক্যামেরাও থাকতে পারবে না।

প্রথম দিন সকালে এইচএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র, সহজ বাংলা প্রথম পত্র, বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি প্রথম পত্র, বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র (ডিআইবিএস) পরীক্ষা হবে। মাদ্রাসার আলিমে কোরআন মজিদের পরীক্ষা আর কারিগরিতে সকালে বাংলা-২ (১১২১) ও বিকেলে বাংলা-১ (১১১১) বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হয়ে চলবে দুপুর ১টা পর্যন্ত। বিকেলের পরীক্ষা হবে ২টা থেকে ৫টা পর্যন্ত। এইচএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলবে ৯ জুন পর্যন্ত। আর ১১ থেকে ২০ জুনের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে ব্যবহারিক পরীক্ষা।

এবার আট হাজার ৫৩৩টি প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষা দুই হাজার ৪৫২টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। বিদেশে সাতটি কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেবে ২৬২ জন। আজ সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজে এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করবেন বলে মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এসএসসির মতো এইচএসসিতেও এবার প্রথমে বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) ও পরে সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়) অংশের পরীক্ষা হবে। উভয় পরীক্ষার মধ্যে ১০ মিনিটের বিরতি থাকবে। সকাল ১০টায় শুরু হবে বহুনির্বাচনী পরীক্ষা। আর ১০টা ৫০ মিনিটে শুরু হবে সৃজনশীল অংশের পরীক্ষা। তবে ‘ট্রাডিশনাল’ বিষয়ের ক্ষেত্রে রচনামূলক পরীক্ষা ১০টায় শুরু হবে। বিকেলের পরীক্ষার ক্ষেত্রেও একই পদ্ধতি অনুসরণ করা হবে।

এবার ১০ বোর্ডে অংশ নেওয়া পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্র ছয় লাখ ৫৪ হাজার ১১৪ ও ছাত্রী পাঁচ লাখ ৬৪ হাজার ৫১৪ জন। এবার এইচএসসিতে আটটি সাধারণ বোর্ডের অধীনে ১০ লাখ ২০ হাজার ১০৯ জন, মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে আলিমে ৯১ হাজার ৫৯১, কারিগরি বোর্ডের অধীনে এইচএসসি বিএমে এক লাখ দুই হাজার ১৩২ এবং ডিআইবিএসে চার হাজার ৭৯৬ পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। গত বছর এ পরীক্ষায় ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪ শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী, সেরিব্রাল পলসিজনিত প্রতিবন্ধী ও যাদের হাত নেই এমন প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থী শ্রুতিলেখক নিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে। এ ধরনের পরীক্ষার্থী ও শ্রবণপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ২০ মিনিট সময় বরাদ্দ থাকবে। এ ছাড়া বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন (অটিস্টিক ও ডাউন সিনড্রোম বা সেরিব্রাল পলসি আক্রান্ত) পরীক্ষার্থীরা ৩০ মিনিট অতিরিক্ত সময় পাবে এবং তারা অভিভাবক বা শিক্ষক অথবা সাহায্যকারী নিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে।


মন্তব্য