kalerkantho


আজ ১২ বছরে পা দিচ্ছে র‌্যাব

ব্যর্থতা আছে সক্ষমতাও বাড়ছে

সরোয়ার আলম   

২৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ব্যর্থতা আছে সক্ষমতাও বাড়ছে

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ১২ বছরে পা দিচ্ছে আজ শনিবার। ২০০৪ সালের এই দিনে তৎকালীন জোট সরকারের আমলে প্রতিষ্ঠা করা হয় এই এলিট ফোর্স।

স্বাধীনতা দিবসের প্যারেডে অংশগ্রহণের মাধ্যমে জনসাধারণের সামনে আত্মপ্রকাশ করে এই বিশেষ বাহিনী। অপারেশনের দায়িত্ব পায় ২০০৪ সালের ১৪ এপ্রিল। রমনা বটমূলে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে তারা জনসমক্ষে আসে।

শুরু থেকেই বিশেষ লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামে র‌্যাব। তাদের হাতে একে একে গ্রেপ্তার হয় শীর্ষ সন্ত্রাসী, জঙ্গি নেতাসহ অন্যান্য অপরাধী। জঙ্গি সংগঠনগুলোর কার্যক্রম পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারলেও শায়খ আবদুর রহমান, বাংলা ভাই, মুফতি হান্নানসহ অন্য জঙ্গি নেতাদের গ্রেপ্তার করতে পেরেছে তারা।

সংস্থাটির ব্যর্থতাও রয়েছে অনেক। অনেক মামলার তদন্ত খেই হারিয়ে ফেলেছে। দিনের পর দিন চলছে তদন্ত।

একই সঙ্গে এটা অনস্বীকার্য, র‌্যাবের সক্ষমতা বাড়ছে। নিজস্ব জমিতে তৈরি হচ্ছে সদর দপ্তর। উদ্ধার করছে আগ্নেয়াস্ত্র, বোমা, গ্রেনেড ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম। ভেজালবিরোধী কার্যক্রমেও পিছিয়ে নেই তারা। প্রতিষ্ঠার ১১ বছরে সারা দেশে এই বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হয়েছে এক লাখ ৬৬ হাজার ৬৭০ অপরাধী। আর এ সময়ে ক্রসফায়ারে প্রাণ হারিয়েছে ৬৩৩ জন।

র‌্যাব কর্মকর্তারা বলছেন, তাঁরা এখন  সেবার মাধ্যমে মানুষের আস্থা অর্জনে সক্রিয় রয়েছেন। মানুষ বিপদে-আপদে তাঁদের কাছে ছুটে যায়।

 প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কালের কণ্ঠকে বলেন, সন্ত্রাসী ও জঙ্গিসহ অন্যান্য ক্ষেত্রের অপরাধীদের গ্রেপ্তার এবং তাদের নির্মূলে র‌্যাবের অবদান সবচেয়ে বেশি। ১১ বছরে তারা দেশকে অনেক কিছু দিয়েছে। ব্যর্থতার চেয়ে তাদের সফলতা বেশি। সংস্থাটিকে আরো উন্নত ও কার্যকর বাহিনী রূপে গড়ে তুলতে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। র‌্যাবের সদর দপ্তরসহ বিভিন্ন ব্যাটালিয়নের নিজস্ব ভবন নির্মাণে অর্থ দিচ্ছে সরকার। জনবলও বাড়ানো হবে।

র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল জিয়াউল আহসান গতকাল শুক্রবার কালের কণ্ঠকে বলেন, র‌্যাবের ব্যর্থতার চেয়ে সফলতার পাল্লা ভারী। ভালো কাজ করতে গেলে সমালোচনা হবে, এটাই স্বাভাবিক। তার পরও র‌্যাব এগিয়ে চলেছে। সন্ত্রাসী থেকে শুরু করে নানা ধরনের অপরাধীর কাছে র‌্যাব মূর্তিমান আতঙ্ক। অপরাধ করলে র‌্যাব কাউকে ছাড় দেয় না। তিনি আরো বলেন, দেশের প্রতিটি ক্রান্তিলগ্নে র‌্যাব অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে। বিভিন্ন সময়ে র‌্যাবের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে, তা যথাযথভাবে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আর র‌্যাবকে পুলিশ থেকে আলাদা করে মন্ত্রণালয়ের অধীনে যাতে নেওয়া হয়, সেই দাবি জানানো হবে।  

র‌্যাব সূত্র জানায়, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ থেকে টানা তিন দিন বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করবে র‌্যাব সদর দপ্তর। প্রথম দিনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর পতাকা উত্তোলন এবং সাহসিকতা ও ভালো কাজের জন্য সংশ্লিষ্ট সদস্যদের পুরস্কৃত করা হবে। আগামীকাল রবিবার দরবার ও মিডিয়াকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় এবং পরদিন সোমবার সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নৈশ ভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে।

র‌্যাবের এক কর্মকর্তা বলেন, ১২ বছরে র‌্যাবের সফলতা অনেক। আবার কিছু ঘটনায় সমালোচিতও হয়েছে। নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনা র‌্যাবকে এখনো তাড়া করে বেড়ায়। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ রয়েছে র‌্যাবের বিরুদ্ধে। ওই সব অভিযোগ সমাধানে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশের মানবাধিকার বিশেষজ্ঞরা র‌্যাবকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।

সফলতার পাশাপাশি র‌্যাবের কিছু ব্যর্থতাও রয়েছে। সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যার ঘটনায় এখনো তদন্তের কাজ চালানো হচ্ছে। গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতি নুরুল ইসলাম ও তাঁর ছেলের হত্যা-মামলা তদন্ত শেষ করতে পারেনি র‌্যাব। শেরপুরে ৫২ হাজার গুলি ও হবিগঞ্জের সাতছড়িতে বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হলেও কাউকে ধরা যায়নি।  

সূত্র জানায়, কার্যক্রম শুরুর সময় সদর দপ্তরসহ সাতটি ব্যাটালিয়ন ছিল র‌্যাবের। লোকবল ছিল পাঁচ হাজার ৫২১ জন। প্রয়োজনের তাগিদে বেড়েছে জনবল ও ব্যাটালিয়নের সংখ্যা। পুলিশ, সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনী, বিজিবি, কোস্ট গার্ড, আনসার ও সরকারের বেসামরিক প্রশাসনের চৌকস কর্মকর্তা ও সদস্যদের নিয়ে এখন ১৪টি ব্যাটালিয়নে সাড়ে আট হাজার সদস্য কর্মরত আছে র‌্যাবে। দীর্ঘদিন ধরেই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ব্যাটালিয়নগুলোর কার্যক্রম চলে আসছে ভাড়া বাড়িতে। আবার কয়েকটি ব্যাটালিয়নের অফিস আছে কমিউনিটি সেন্টারে। তারা মাসের পর মাস ধরে ভাড়া দিচ্ছে না বলে অভিযোগও উঠেছে। এ নিয়ে চলছে নানা ধরনের সমালোচনা। আবার র‌্যাব সদর দপ্তরের নিজস্ব ভবনও নেই। সিভিল এভিয়েশনের ভবনে কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।


মন্তব্য