kalerkantho


দূষণ নিয়ন্ত্রণে পায়রা টহল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



দূষণ নিয়ন্ত্রণে পায়রা টহল

লন্ডনের বায়ুদূষণের মাত্রাকে কলঙ্কজনক মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। ব্রিটিশ রাজধানীটির দূষণ নিয়ন্ত্রণে সুপ্রিম কোর্টেরও নির্দেশনা রয়েছে।

এ অবস্থায় লন্ডনের বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণ ও সচেতনতা তৈরি করতে ‘পায়রা বায়ু টহল’ চালু করা হয়েছে। পিঠে অত্যাধুনিক যন্ত্রের একটি ক্ষুদ্র ব্যাকপ্যাক নিয়ে ‘পায়রা সেনারা’ উড়ে উড়ে দূষণের বার্তা দেবে নগরবাসীকে।

বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণ ও জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে ‘পায়রা বায়ু টহল’ নামের এই প্রকল্পের অধীনে ১০টি পায়রার পিঠে বেঁধে দেওয়া হয়েছে ছোট্ট ব্যাকপ্যাক। তাতে রয়েছে দূষণ মাপার সেন্সরযুক্ত ডিভাইস এবং টুইটার হ্যান্ডেল। ব্যাকপ্যাক বেঁধে দিয়ে পায়রাগুলোকে ছেড়ে দেওয়া হয় লন্ডনের আকাশে। এরপর একেকটি পায়রা যে এলাকায় যাবে, সেখানকার বাতাসে কী পরিমাণ নাইট্রোজেন ডাই-অক্সাইড, ওজোন গ্যাস ও অন্যান্য ক্ষতিকর উপাদন রয়েছে, তা মেপে উপাত্ত পাঠিয়ে দেবে লন্ডনের ‘প্লুম ল্যাবে’। একই সঙ্গে লন্ডনবাসী ‘পিজিয়ন এয়ার প্যাট্রল’ আইডিতে টুইট করলে অনলাইনেই জেনে যেতে পারবে তার এলাকায় দূষণের পরিস্থিতি ঠিক কী পরিমাণ। পায়রাটি যে অঞ্চলে রয়েছে, এর একটি লাইভ ম্যাপও দেখা যাবে অনলাইনে। তবে বায়ুদূষণের প্রভাব পড়বে এই পায়রাগুলোর ওপরও।

যেমন—শরীরের ওজন কমে যেতে পারে, দুর্বল হতে পারে হৃদযন্ত্র। পায়রাগুলোর নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে এ প্রকল্পে একজন পশু-পাখির চিকিৎসককেও রাখা হয়েছে।

তবে লন্ডনের বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য এটি স্থায়ী কোনো ব্যবস্থা নয়। যুক্তরাজ্যভিত্তিক তথ্যপ্রযুক্তি কম্পানি ‘ডিজিটাস-এলবিআই’ মাত্র তিন দিনের জন্য চালু করেছে প্রকল্পটি। মূলত তাদের পণ্য বাজারজাতকরণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে লন্ডনের বায়ুর গুণাগুণ সম্পর্কে সচেতনতা তৈরির জন্য প্রকল্প নেওয়া হয়। গত বুধবার প্রকল্পটি চালু হওয়ার পর আজ শুক্রবার তা শেষ হচ্ছে। সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট (ইউকে)।


মন্তব্য