kalerkantho

রবিবার। ২২ জানুয়ারি ২০১৭ । ৯ মাঘ ১৪২৩। ২৩ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মহাসচিব হচ্ছেন আমজাদ সিয়াল

পাকিস্তানে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন ৯-১০ নভেম্বর

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পাকিস্তানে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন ৯-১০ নভেম্বর

দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থার (সার্ক) ১৯তম শীর্ষ সম্মেলন আগামী ৯ থেকে ১০ নভেম্বর পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত হবে। দক্ষিণ এশীয় আটটি দেশের এই জোটের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা গতকাল বৃহস্পতিবার নেপালের পোখরায় সার্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের ৩৭তম বৈঠকে এ বিষয়টি অনুমোদন করেন। বাংলাদেশের পক্ষে বৈঠকে নেতৃত্ব দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

এদিকে পাকিস্তান সার্কের পরবর্তী মহাসচিব হিসেবে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিশেষ সচিব আমজাদ হোসেন বি. সিয়ালের নাম প্রস্তাব করেছে। সার্কের সদস্য আটটি দেশের ইংরেজি নামের আদ্যক্ষর অনুযায়ী তিন বছরের মেয়াদে পরবর্তী মহাসচিব পাকিস্তান থেকেই হওয়ার কথা। তিনি আগামী বছর মার্চে বর্তমান মহাসচিব নেপালের অর্জুন বাহাদুর থাপার স্থলাভিষিক্ত হবেন।

অন্যদিকে সার্ক পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র (সার্ক এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট সেন্টার, সংক্ষেপে এসইডিএমসি) কোথায় হবে তা নিয়েও সদস্য দেশগুলোর মতপার্থক্য নিরসন হয়েছে। বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তান—তিন দেশই নিজ দেশে ওই কেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব দিয়েছিল। তবে গতকালের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, প্রস্তাবিত ওই কেন্দ্রটি দুই ভাগে বিভক্ত হবে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র হবে ভারতে। অন্যদিকে পাকিস্তানে সার্কের জ্বালানি কেন্দ্রের সঙ্গে পরিবেশ বিষয়টি যোগ হয়ে হবে জ্বালানি ও পরিবেশ কেন্দ্র।

নেপালের দ্য হিমালয়ান পত্রিকার অনলাইনে গতকাল প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী কমল থাপা গতকাল সার্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক উদ্বোধন করেন। এর আগে গত সার্কের যুগ্ম সচিব ও পররাষ্ট্রসচিব পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এবারের বৈঠকে ভারত সার্ক উপগ্রহ চালুর বিষয়ে সদস্য দেশগুলোর সম্মতি পেয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর আবহাওয়া ও যোগাযোগের জন্য এ উপগ্রহ ব্যবহার করা হবে। অন্যদিকে নেপাল তার বন ব্যবস্থাপনায় অভিজ্ঞতা বিনিময়ের প্রস্তাব দিলে সার্কের সদস্য দেশগুলো তাতে সম্মতি দিয়েছে।


মন্তব্য