kalerkantho


নিখোঁজের পরদিন স্কুল ছাত্রীর লাশ মিলল নদীতে

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

১৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



নিখোঁজের পরদিন স্কুল ছাত্রীর লাশ মিলল নদীতে

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে নিখোঁজের পরদিন এক স্কুলছাত্রীর লাশ নদী থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ, যাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ স্বজনদের। গতকাল সোমবার সকালে উপজেলার পানগুছি নদী থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত জান্নাতি আক্তার (১২) মোরেলগঞ্জ উপজেলার বারুইখালী গ্রামের জালাল শেখের মেয়ে। সে স্থানীয় মানিক মিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী।

তাকে হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ সেলিনা বেগম (৫২) নামের এক নারীকে আটক করেছে। সে একই এলাকার সরোয়ার হাওলাদারের স্ত্রী।

নিহত জান্নাতের মামা কাজী আলতাফ হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, রবিবার রাতে বাড়ি থেকে প্রায় ৫০ গজ দূরে ইব্রাহিম স্মৃতি দাখিল মাদ্রাসা মাঠে মাহফিলে ওয়াজ শুনতে গিয়েছিল জান্নাতি। সেখান থেকে রাত সাড়ে ১০টার দিকে সে নিখোঁজ হয়। সারা রাত খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। পরে সকালে উপজেলার ফেরিঘাট এলাকায় তার লাশ পাওয়া যায়। জান্নাতিকে অপহরণের পর হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন কাজী আলতাফ। তিনি আরো বলেন, জান্নাতির বাবা জালাল শেখের সঙ্গে তার মামা সরোয়ার হাওলাদারের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। ওই বিরোধের জের ধরে সরোয়ারের পক্ষ জান্নাতিকে হত্যা করে থাকতে পারে।

তবে ওই অভিযোগের বিষয়ে জানতে যোগাযোগের চেষ্টা করেও সরোয়ারের পরিবারের কারো কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মোরেলগঞ্জ থানার ওসি মো. রাশেদুল আলম কালের কণ্ঠকে জানান, সোমবার সকালে স্থানীয় লোকজন ফেরিঘাট এলাকায় মাথা নিচের দিকে আর দুই পা ওপরের দিকে—এমন একটি লাশ নদীতে ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জান্নাতির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ওসি জানান, জমিজমা নিয়ে জালাল শেখ ও সরোয়ার হাওলাদারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। ধারণা করা হচ্ছে, ওই বিরোধের জের ধরে জান্নাতিকে অপহরণের পর হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন সরোয়ার হাওলাদারের স্ত্রী সেলিনা বেগমকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। তাকে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ওসি।

অন্যদিকে গত শুক্রবার গভীর রাতে মোল্লাহাট উপজেলার মাদারতলী গ্রামের একটি বাগান থেকে আকিবুর শেখ (৮) নামের দ্বিতীয় শ্রেণির এক ছাত্রের লাশ উদ্ধারের ঘটনার তিন দিনেও ওই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত কাউকে আটক বা খুনিদের শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ।


মন্তব্য