kalerkantho

25th march banner

ব্রিটিশ নতুন অভিবাসননীতি

আয় ৩৫ হাজার পাউন্ডের নিচে হলে ফেরত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আয় ৩৫ হাজার পাউন্ডের নিচে হলে ফেরত

ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশের নাগরিক নন এমন অভিবাসীদের বার্ষিক আয় ৩৫ হাজার পাউন্ডের কম হলে তাকে দেশে ফেরত পাঠাবে যুক্তরাজ্য। দেশটির অভিবাসন-সংক্রান্ত নতুন এক আইনে এ কথা বলা হয়েছে। আইনটি আগামী ৬ এপ্রিল থেকে কার্যকর হবে। যুক্তরাজ্যে ১০ বছরের কম সময় ধরে কাজ করছে এমন শ্রমিকদের ক্ষেত্রে এ আইন কার্যকর হবে। তবে নার্সিংয়ের মতো কয়েকটি পেশার ক্ষেত্রে এ আইন প্রযোজ্য হবে না।

অবশ্য এই আইন কার্যকর না করতে এরই মধ্যে এক লাখ ব্রিটিশ নাগরিকের সই করা একটি আবেদন সরকারের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু ব্রিটিশ সরকার জানিয়েছে, এই আইনটি স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ এবং অভিবাসীদের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য প্রচুর সময় দেওয়া হয়েছে। ব্রিটিশ পার্লামেন্টেও আইনটি প্রায় সব দলের সমর্থন পেয়েছে।

ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, ‘অতীতে যেকোনো ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান দেশের নাগরিকদের প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ তৈরি না করে খুব সহজেই বিদেশ থেকে কর্মী ভাড়া করে আনত। ’ এভাবে বেতন দিলে ব্রিটিশ কম্পানিগুলোকে ১৮১ ও ১৭১ মিলিয়ন পাউন্ডের মাঝামাঝি বাড়তি ব্যয় করতে হবে। বেসরকারি হিসাবে এ অঙ্ক আরো বেশি, প্রায় ৭৬১ মিলিয়ন পাউন্ড। ব্রিটিশ সরকার মনে করে, নতুন নিয়মের কারণে মোট অভিবাসীর সংখ্যা বেশ পরিমিতভাবেই কমবে। এই আইন বলবৎ হলে বিদেশি দক্ষ কর্মীদের জন্য মাঝারি আয়ের নিশ্চয়তা দেওয়া সম্ভব হবে বলে মনে করেন ওই মুখপাত্র।

সরকারি কর্মকর্তারা জানান, টায়ার-২ ভিত্তিতে যারা ২০১১ সালে ব্রিটেনে কাজ করতে এসেছে তারা এই পরিবর্তনের কথা ভালো করেই জানে। ওই বছর ৫ এপ্রিলের আগে যারা ব্রিটেনে ঢুকেছে তাদের জন্য এই আইন প্রযোজ্য হবে না। প্রসঙ্গত, ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত নয় এমন দক্ষ অভিবাসীরা টায়ার-২-এর ভিত্তিতেই ব্রিটেনে প্রবেশ করে। বর্তমান আইনে এ ধরনের ভিসা নিয়ে যুক্তরাজ্যে প্রবেশ করা দক্ষ কর্মীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য ব্রিটেনে বৈধভাবে থাকা এবং কাজ করার আবেদন জানাতে পারে। তবে নতুন আইন কার্যকর হলে বার্ষিক বেতন ৩৫ হাজার পাউন্ডের বেশি হলে এই আবেদন জানাতে পারবে। সূত্র : গার্ডিয়ান।


মন্তব্য