kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঢাকায় তিন দিনব্যাপী হজ ও ওমরাহ মেলা শুরু

হজে গমনেচ্ছুদের প্রাক-নিবন্ধন ২০ মার্চ থেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



হজে গমনেচ্ছুদের প্রাক-নিবন্ধন ২০ মার্চ থেকে

হজে গমনেচ্ছুদের প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হচ্ছে ২০ মার্চ। জাতীয় পরিচয়পত্রের আলোকে ই-সিস্টেমে এই নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

সরকারি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে এই নিবন্ধনে ব্যয় হবে ৩০ হাজার টাকা। তাঁরা দেশের যেকোনো স্থান থেকেই নিবন্ধন করতে পারবেন। এ ছাড়া বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাত্রীদের নিবন্ধনে লাগবে ৩০ হাজার ৭৫২ টাকা। তাঁদের নিবন্ধন কাজটিও সারতে হবে হজ এজেন্সির মাধ্যমে। এই নিবন্ধনের ক্রমানুসারেই পরবর্তী সময়ে যাত্রীরা হজে যাওয়ার সুযোগ পাবেন।

গতকাল শনিবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নবম হজ ও ওমরাহ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান এসব তথ্য জানান। হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) তিন দিনব্যাপী এই মেলার আয়োজন করেছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে।

হাব সভাপতি মো. ইব্রাহিম বাহারের সভাপতিত্বে ও সহসভাপতি ফরিদ আহমেদ মজুমদারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুন এমপি ও ভারপ্রাপ্ত ধর্মসচিব আব্দুল জলিল।

ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘সৌদি কর্তৃপক্ষ হজ ব্যবস্থাপনায় ই-হজ সিস্টেম চালু করেছে। আমরাও এর সঙ্গে সমন্বয় করে আমাদের হজ ব্যবস্থাপনাকে ডিজিটাল হজ ব্যবস্থাপনায় রূপান্তরিত করেছি। প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রম আগেই শুরু করতে চেয়েছিলাম। সামান্য প্রস্তুতি বাকি থাকায় হাব নেতাদের সঙ্গে কথা বলে ২০ মার্চ থেকে এই কার্যক্রম শুরুর সিদ্ধান্ত হয়েছে। ’

মেলার উদ্বোধন ঘোষণা করে মন্ত্রী বলেন, হজ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের অনিয়ম দেখা গেলে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যেই দায়ী হোক শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। এই মেলা হজযাত্রীদের নানা তথ্য ও সেবা পাওয়ার সুযোগ করে দেওয়ার পাশাপাশি হজযাত্রীরা যাতে মধ্যস্বত্বভোগী ও দালালদের প্রতারণার শিকার না হন সে বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

মন্ত্রী জানান, সৌদি আরবের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী এবার বাংলাদেশ থেকে এক লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন হজ পালন করতে পারবেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১০ হাজার, বাকি ৯১ হাজার ৭৫৮ জন যাবেন বেসরকারিভাবে এজেন্সির মাধ্যমে। মন্ত্রী জানান, এর বাইরে আরো ১০ হাজার অতিরিক্ত হজযাত্রীকে এ বছর হজে যাওয়ার সুযোগ দিতে সৌদি কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ধর্মসচিব আব্দুল জলিল জানান, অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের হজযাত্রীদের ক্ষেত্রেও আইডিবির মাধ্যমে টাকা জমা দিয়ে কোরবানি দিতে সৌদি কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা রয়েছে। এ বছর ভুয়া নাম এন্ট্রি করলে তার স্থলে অন্য নাম প্রতিস্থাপনের কোনো সুযোগ দেওয়া হবে না। তবে পরিবারের কোনো সদস্য মারা গেলে বা অসুস্থ হলে অন্য সদস্য প্রতিস্থাপনের সুযোগ থাকবে।

হাব সভাপতি ইব্রাহিম বাহার প্রাক-নিবন্ধনে আইটি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম স্বচ্ছ করার দাবি জানান। একই সঙ্গে সীমিত পরিসরে হলেও বাংলাদেশ বিমান ও সৌদি এয়ারলাইনসের বাইরে থার্ড ক্যারিয়ার চালুর দাবি জানান তিনি। হাব মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহ সৌদি আরবে হজযাত্রীরা যাতে দেশি অভ্যস্ত খাবার খেতে পারেন সেই ব্যবস্থার দাবি জানান।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন হজ অফিসের পরিচালক ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল, হাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ড. মোহাম্মদ ফারুক ও মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহ।


মন্তব্য