বরিশাল অঞ্চলে সহিংসতা বাড়ছে, ভোলায়-334983 | শেষের পাতা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


বরিশাল অঞ্চলে সহিংসতা বাড়ছে, ভোলায় নিহত ১

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বরিশাল অঞ্চলে সহিংসতা বাড়ছে, ভোলায় নিহত ১

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বরিশাল অঞ্চলে সহিংসতা বেড়েছে। গতকাল শুক্রবার ভোলার চরসামাইয়া ইউনিয়নে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত থেকে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে হামলা ও সংঘর্ষে ৮৮ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গত চার দিনে শুধু বরিশাল অঞ্চলেই নিহত হয়েছে তিনজন। গতকাল ভোলায় নিহত ব্যক্তির নাম সিরাজ (৫৫)। তিনি চরসামাইয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদস্য প্রার্থীর কর্মী ছিলেন।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় এক ছাত্রদল নেতা নিহত হন। গত সোমবার পটুয়াখালীর বাউফলে নিহত হন ইউনিয়ন শাখা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি। বিস্তারিত আমাদের আঞ্চলিক অফিস, নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে : 

ভোলায় একজন নিহত : ভোলা সদর উপজেলার চরসামাইয়া ইউনিয়নে দুই মেম্বার পদপ্রার্থীর কর্মী ও সমর্থকদের সংঘর্ষে সিরাজ (৫৫) নামের একজন নিহত হয়েছেন। সিরাজ মেম্বার পদপ্রার্থী বজলুর রহমানের কর্মী ছিলেন। গতকাল সকালে নির্বাচনের প্রচার শেষে বাড়ি ফেরার পথে শান্তিরহাট বেড়ির পাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পাঁচজনকে আসামি করে ভোলা সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করা হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ, মেম্বার পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীরের লোকজনের মারধরের কারণে সিরাজের মৃত্যু হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে ভোলা মডেল থানার ওসি খাইরুল কবির জানান, গতকাল শুক্রবার সকালে চরসামাইয়া ইউনিয়নের বজলু মেম্বারের পক্ষে প্রচার শেষে বাড়ি ফিরছিলেন সিরাজসহ কয়েকজন। পথে দুর্বৃত্তরা সিরাজকে মারধর করে পালিয়ে যায়। পরে তাঁকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। ওসি খাইরুল কবির আরো জানান, সিরাজের মৃত্যুর সঙ্গে নির্বাচনের সহিংসতার কোনো সম্পৃক্ততা নেই বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

বগুড়া : বগুড়ার শেরপুরে শেরুয়া বটতলা এলাকায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে তিনজনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন শেষে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়। এ সময় বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে এক ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শেরপুর উপজেলার শাহবন্দেগী ইউনিয়নে প্রার্থী মনোনীত করতে শেরুয়াবটতলা এলাকায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভোটের আয়োজন করা হয়। ভোটে ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আল আমিন ৪৬ ভোট পেয়ে প্রার্থী মনোনীত হন। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আওয়ামী লীগের সদস্য আবু তালেব আকন্দ পান ৩৭ ভোট। এই নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ বেধে যায়। নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষ ছাড়াও উভয় পক্ষই মহাসড়কে বেশ কিছু যানবাহন ও দোকানপাট ভাঙচুর করে। 

ঝালকাঠি : ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার পাটকেলঘাটা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ  হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১২ জন আহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে জোরখালী বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শহিদুল ইসলাম হৃদয়ের নির্বাচনী কার্যালয়ে বসে ছিল কয়েকজন কর্মী। এ সময় আকস্মিকভাবে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শিশির দাসের কর্মীরা দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোঁটা নিয়ে ওই কার্যালয়ে হামলা চালায়। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।

রূপগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে দুই ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনায় নারীসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। গতকাল দুপুরে উপজেলার গোলাকান্দাইল ও সাওঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে এক বর্ধিত সভায় গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মনজুর হোসেন ভুইয়াকে সমর্থন দেওয়া হয়। কিন্তু এস কে সোলায়মান নামের আরেক প্রার্থী হিসেবে নিজের সমর্থন দাবি করেন। এই নিয়ে গতকাল সকাল ১১টার দিকে গোলাকান্দাইল হাট এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুর কমলনগরের তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোছলেহ উদ্দিনসহ উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছে। গতকাল দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের মুসলিমপাড়ায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোসলেহ উদ্দিন তাঁর সমর্থকদের নিয়ে গণসংযোগ করছিলেন। এ সময় আওয়ামী লীগের প্রার্থী ফয়সল আহমদ রতনের সমর্থক স্থানীয় ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা তাদের বাধা দেয়। একপর্যায়ে দুই পক্ষে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পিরোজপুর : পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী প্রগতি মণ্ডল ও বিদ্রোহী প্রার্থী মিজানুর রহমান মিন্টুর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে দৈহারী ইউনিয়নে ঠাকুর হাওলা আমতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে গতকাল দুপুরে কাউখালী উপজেলার শিয়ালকাঠি ইউনিয়নের প্রতিদ্বন্দ্বী দুই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। এ সময় কামাল পারভেজ গাজি নামের একজনকে অস্ত্রসহ আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। কামাল গাজি স্বতন্ত্র প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমান গাজির ছোট ভাই।

সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরার কলারোয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ছয়জন আহত হয়েছে। গতকাল সকালে কয়লা ইউনিয়নের আফজালের মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে আসাদুল ইসলাম (৩৭) নামে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

মন্তব্য