এবার পিরোজপুরে হামলায় নিহত ছাত্রদল-334282 | শেষের পাতা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৪ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৬ জিলহজ ১৪৩৭


এবার পিরোজপুরে হামলায় নিহত ছাত্রদল নেতা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



এবার পিরোজপুরে হামলায় নিহত ছাত্রদল নেতা

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোটগ্রহণ যতই এগিয়ে আসছে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সহিংসতা বাড়ছে। গত মঙ্গলবার রাতে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় হামলায় নিহত হয়েছেন ছাত্রদলের এক নেতা। আহত হয়েছেন সংগঠনের আরো এক নেতা। পাল্টা হামলায় আহত হয়েছে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর তিন সমর্থক।

একই রাতে ভোলা সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগদলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর নির্বাচনী ক্যাম্প হামলার শিকার হয়েছে। ক্যাম্পটি ভাঙচুরের পাশাপাশি গুলিবর্ষণ ও বোমা ফাটানো হয়।

এ ছাড়া গতকাল বুধবার ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার আওয়ামী লীগ প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের হামলায় দলের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর অন্তত ২০ জন কর্মী আহত হয়েছে।

এর আগে গত সোমবার পটুয়াখালীর বাউফলে আওয়ামী লীগ মনোনীত ও ‘বিদ্রোহী’ দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে নিহত হন ইউনিয়ন শাখা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি। পটুয়াখালীসহ ছয়টি স্থানে সহিংসতায় পুলিশসহ আহত হয় আরো অন্তত ৬৪ জন।

আমাদের পিরোজপুর প্রতিনিধি জানান, নাজিরপুর উপজেলার শেখমাটিয়া ইউনিয়নে হামলায় নিহত হয়েছেন উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. সামসুল হক ছোট্ট। তিনি সংগঠনটির ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং ওই ইউনিয়নে বিএনপির চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর ভাগ্নে। আওয়ামী লীগদলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এস এম কাইউম উজ জামানের কর্মীরা এই হামলা চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে শেখমাটিয়া ইউনিয়নের খেজুরতলা এলাকায় বিএনপিদলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. তৌহিদুল ইসলামের কর্মিসভা শেষে তাঁকে রঘুনাথপুরে তাঁর বাড়িতে পৌঁছে দিতে যান ছাত্রদল নেতা সামসুল হক ও ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন। সেখান থেকে ফেরার পথে ওই গ্রামের হক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কাছে হামলার শিকার হন তাঁরা। হামলায় সামসুল ও জাহাঙ্গীর মারাত্মক আহত হন। তাঁদের নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার পর অবস্থার অবনতি ঘটলে নিয়ে যাওয়া হয় খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে চিকিত্সাধীন অবস্থায় রাত ১টার দিকে সামসুল হক মারা যান।

শেখমাটিয়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তৌহিদুল ইসলাম জানান, আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা তাঁর ভাগ্নে ছাত্রদল নেতা সামসুল হক ছোট্ট ও বিএনপি নেতা জাহাঙ্গীর হোসেনকে কুপিয়ে জখম করে।

এ হামলার ঘটনার জের ধরে রাত ১০টার দিকে ইউনিয়নের হুলার চর এলাকায় বিএনপি প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের হামলায় আওয়ামী লীগদলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এস এম কাইউম উজ জামানের তিন কর্মীকে হাতুড়িপেটা ও কুপিয়ে আহত করে। মারাত্মক আহত নুরু মুন্সী (৩২), জাহিদ হাওলাদার (৩০) ও ফাইজুলকে (৩৫) খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পিরোজপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোল্লা আজাদ হোসেন জানান, ছাত্রদল নেতা হত্যার ঘটনাটি পরিকল্পিত। হামলাকারীরা আগে থেকেই ওত পেতে ছিল।

এদিকে জেলার জিয়ানগর উপজেলার বালিপাড়া বাজারে গতকাল বুধবার আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী কবির হোসেন বয়াতির চাচাতো ভাই মিরাজ হোসেন বয়াতি দোকানে ঢুকে উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি আবুল কালাম সিকদারকে রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করে।

এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপির আবুল কালাম সিকদার বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়াই আমার ওপর হামলা চালানো হয়েছে।’ আওয়ামী লীগ প্রার্থী কবির হোসেন বলেন, ব্যবসায়িক দ্বন্দ্বের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে, নির্বাচন নিয়ে নয়।

ভোলা প্রতিনিধি জানান, মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়ন পরিষদের কাছে ভোটেরঘর এলাকায় আওয়ামী লীগদলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ইয়ানুর রহমান বিপ্লব মোল্লার নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা-ভাঙচুর, বোমা বিস্ফোরণ ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ক্যাম্পে পেট্রল ঢেলে আগুন দেওয়া হয়। এতে কিছু আসবাব পুড়ে যায়। এ ঘটনার জন্য আওয়ামী লীগদলীয় চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বিপ্লব এবং একই দলের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী কামাল উদ্দিন ওরফে সকেট কামাল একে অন্যকে দায়ী করেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুটি গুলির খোসা ও বোমাসদৃশ বস্তু উদ্ধার করেছে।

এ ব্যাপারে ভোলা সদর মডেল থানার ওসি মীর খায়রুল কবির জানান, এখনো কেউ কোনো অভিযোগ দায়ের করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঝালকাঠি প্রতিনিধি জানান, গতকাল নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থীর উঠান বৈঠকে হামলা করেছে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা। গতকাল ইউনিয়নের বুড়িরহাট এলাকায় এই হামলায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে তিনজনকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সোহরাব হোসেন বাবুল মৃধা বলেন, ‘কারা হামলা করেছে, তা আমার জানা নেই।’

নলছিটি থানার ওসি এস এম মাকসুদুর রহমান বলেন, ‘বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি জানান, উপজেলার চাকামইয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর কর্মী, সমর্থক ও ভোটারদের অস্ত্র দেখিয়ে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হুমায়ুন কবির কেরামত এই অভিযোগ করেন। এ ব্যাপারে বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. মজিবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে তাঁর মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

বরগুনা প্রতিনিধি জানান. আমতলী উপজেলার আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নে সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী এ কে এম নুরুল হককে গতকাল সকালে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গত শনিবার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. আবুল কালাম আজাদের কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে এই প্রার্থীদের কর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এতে আহত হয় অন্তত ১২ জন। এই ঘটনায় দুই পক্ষই মামলা করে।

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, গতকাল দুপুরে সিরাজদিখান উপজেলার বালুচর ইউনিয়নে বিএনপির নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা করা হয়েছে। মনোনয়ন পেতে ব্যর্থ হয়ে যুবদলের স্থানীয় নেতা মো. শাহ আলম দলবল নিয়ে এই হামলা চালান বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ইউনিয়ন যুবদলের এই সহসভাপতিসহ তিনজনকে আটক করেছে।

সিরাজদিখান থানার ওসি জানান, এ ঘটনার পর বিকেলে পুলিশ যুবদল নেতা শাহ আলম, উজ্জল মিয়া ও বাবুল হোসেনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

মন্তব্য