বাধাদানের অভিযোগে ফুলগাজী উপজেলা-333061 | শেষের পাতা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৪ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৬ জিলহজ ১৪৩৭


বাধাদানের অভিযোগে ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত

১৪ জনের বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা

বিশেষ প্রতিনিধি   

৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বাধাদানের অভিযোগে ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহে ও জমাদানে বাধা দেওয়া, জনমনে ভীতি সঞ্চার এবং নির্বাচন কমিশন ও সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার অভিযোগে ফেনীর ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবদুল আলিমকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। গতকাল এ ব্যাপারে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

নির্বাচনে প্রভাব বিস্তার, রিটার্নিং অফিসারকে তালিকা ধরিয়ে দিয়ে এর বাইরে কাউকে মনোনয়নপত্র না দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ, উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় ভাঙচুর প্রভৃতি অভিযোগে নির্বাচন কমিশন গত ২ মার্চ স্থানীয় সরকার বিভাগের কাছে ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের সুপারিশ করে। এ ছাড়া ফেনীর পুলিশ সুপারকে তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। কমিশনের সুপারিশেই তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে মামলাও করা হয়েছে।স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের আদেশে বলা হয়েছে, ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আবদুল আলিমের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে। তাঁর কর্মকাণ্ড অসদাচরণ বা ক্ষমতার অপব্যবহারের পর্যায়ে পড়ে। এসব উপজেলা পরিষদ ও রাষ্ট্রের জন্য ক্ষতিকর। তাই উপজেলা পরিষদ আইন অনুযায়ী তাঁকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলো।

ফেনীর পুলিশ সুপারকে লেখা ইসি সচিবালয়ের চিঠিতে বলা হয়, ফুলগাজী উপজেলার ছয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহে ও জমাদানে বাধা দেন উপজেলা চেয়ারম্যান। তিনি জনমনে ভীতির সঞ্চারও করেন। তাই চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার (ইউপি) নির্বাচন বিধিমালা ২০১০-এর ৭৩ বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হোক এবং নির্বাচন কমিশনকে জানানো হোক।

প্রসঙ্গত, ওই চিঠি পাঠানোর পর ৪ মার্চ উপজেলা চেয়ারম্যানসহ আওয়ামী লীগের ১৪ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে মামলা করে পুলিশ। অজ্ঞাতপরিচয় আরো ১৫-২০ জনকে আসামি করা হয়।

উল্লেখ্য, ফুলগাজী উপজেলায় মোট ছয়টি ইউনিয়ন। ২ মার্চেই ওই সব ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করে ইসি। কমিশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরকারি দলের মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানরা ইউপি নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করছেন। কিছু এলাকায় পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে ইসি দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চায়।

মন্তব্য