kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিশ্বব্যাংকের গবেষণা

বিদেশি শ্রমিকে মালয়েশীয়দের কর্মসংস্থান বাড়ে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বিদেশি শ্রমিকে মালয়েশীয়দের কর্মসংস্থান বাড়ে

মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে বিদেশি শ্রমিকরা স্থানীয় শ্রমিকদের ওপর নেতিবাচক কোনো প্রভাব ফেলে না। বরং বিদেশি শ্রমিকদের কারণে স্থানীয়দের কর্মসংস্থান বাড়ে।

বিশ্বব্যাংকের নতুন এক গবেষণায় এমন কথা বলা হয়েছে।

‘মালয়েশিয়ান ইকোনমিক মনিটর : ইমিগ্র্যান্ট লেবার’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বিশ্বব্যাংক জানায়, প্রতি ১০ জন বিদেশি শ্রমিকের কারণে স্থানীয়দের জন্য অন্তত পাঁচটি কর্মসংস্থান তৈরি হয়।

শ্রমিক নিতে সম্প্রতি মালয়েশিয়া সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক সই করে। ঘোষণা দেওয়া হয়, আগামী তিন বছরে বাংলাদেশ থেকে তারা ১৫ লাখ শ্রমিক নেবে। কিন্তু মালয়েশিয়ায় সমালোচনার মুখে পড়ে দেশটির সরকার। কারো কারো যুক্তি, এত বিদেশি শ্রমিক নেওয়া হলে তা স্থানীয়দের কর্মসংস্থানে প্রভাব ফেলবে। এ সমালোচনার মুখে সমঝোতা স্মারক সই হওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বাংলাদেশিসহ সব বিদেশি শ্রমিক নেওয়ার সিদ্ধান্ত স্থগিত করে মালয়েশিয়া। জানায়, ঠিক কত জন বিদেশি শ্রমিক লাগবে, এর হিসাব বের করার আগ পর্যন্ত বিদেশি শ্রমিক নেওয়া স্থগিত থাকবে।

এ প্রেক্ষাপটে বিশ্বব্যাংকের গবেষণায় বলা হয়, বিদেশি শ্রমিকদের কারণে মালয়েশিয়ায় স্থানীয়দের শ্রমবাজার ছোট হয়ে আসছে—এমন ধারণা ভুল। বরং বিদেশিদের কারণে স্থানীয়দের নতুন নতুন কর্মসংস্থান হচ্ছে।

অদক্ষ বিদেশি শ্রমিকদের কারণে স্থানীয়দের বেতন-ভাতায় নেতিবাচক প্রভাব পড়ে—এমন ধারণাও ঠিক নয় বলে জানায় বিশ্বব্যাংক। তাদের হিসাবে অদক্ষ বিদেশি শ্রমিকের প্রভাব দক্ষ বিদেশি শ্রমিকের বেতন-ভাতায় পড়ে। স্থানীয়দের ওপর এর কোনো প্রভাব নেই।

বিশ্বব্যাংকের গবেষক ড. জিমেনা দেল কার্পিও বলেন, ‘মালয়েশিয়ার সমস্যা হলো, বিদেশি শ্রমিক নেওয়ার ক্ষেত্রে তাদের সুদূরপ্রসারী কোনো নীতিমালা নেই। তাদের উচিত, নিজেদের মানবসম্পদের সঙ্গে ভারসাম্য বজায় রেখে বিদেশি শ্রমিক নেওয়া। ’ সূত্র : দ্য এজ মার্কেটস।


মন্তব্য