সোহরাওয়ার্দীও চায় বিএনপি -332361 | শেষের পাতা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০১৬। ১৬ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৮ জিলহজ ১৪৩৭


কাউন্সিলের মেন্যু মোরগ পোলাও

সোহরাওয়ার্দীও চায় বিএনপি

খালেদা-তারেকের মনোনয়নপত্র জমা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সোহরাওয়ার্দীও চায় বিএনপি

১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলে অতিথিদের পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ‘মোরগ পোলাও’ খাওয়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আপ্যায়ন উপকমিটি। ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের নতুন ভবনের গেটের ৫০ গজ দক্ষিণে কাউন্সিলের জন্য দুই স্তরবিশিষ্ট মঞ্চ নির্মাণ করা হবে। প্রথম স্তরে খালেদা জিয়াসহ স্থায়ী কমিটির নেতারা বসবেন। আর নিচের স্তরে থাকবেন ব্যবস্থাপনা কমিটির দায়িত্বে থাকা সিনিয়র নেতারা।

কাউন্সিলের জন্য ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের পাশাপাশি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানও চেয়েছে বিএনপি। নেতাকর্মীদের জায়গা হবে না—এমন শঙ্কা থেকেই এ বরাদ্দ চেয়ে গণপূর্তে আবেদন করা হয়েছে। গতকাল বিএনপির দপ্তর সম্পাদক রুহুল কবীর রিজভী এ আবেদন করেন। এর একটি অনুলিপি ঢাকা মহানগর পুলিশকেও (ডিএমপি) দেওয়া হয়েছে। দুই হাজার ৪০০-এরও বেশি কাউন্সিলরের উপস্থিতিতে কাউন্সিলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হবে দুপুর ১টায়। মধ্যাহ্ন ভোজের পর মিলনায়তনের ভেতরে মূল বা ইনডোর অধিবেশন শুরু হবে।

গতকাল রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের অর্থ সম্পাদক ও আপ্যায়ন উপকমিটির আহ্বায়ক আবদুস সালামের সভাপতিত্বে সভায় খাবারের মেন্যু ঠিক করা হয়। কাউন্সিলরদের জন্য সার্বক্ষণিক চা-কফি ও পানির ব্যবস্থাও থাকবে। গতকাল ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণ পরিদর্শন শেষে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় সাংবাদিকদের বলেন, এই জায়গা যথেষ্ঠ নয়। এখানে কাউন্সিল করা খুবই কষ্টসাধ্য হবে। এর মধ্যেই গণপূর্ত বিভাগ থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ব্যবহারের অনুমতি মিলেছে জানিয়ে দুটি জায়গাকে পাশাপাশি ব্যবহারের জন্য সরকারের কাছে অনুমতি চান এই বিএনপি নেতা।

তাঁর সঙ্গে আরো ছিলেন আ স ম হান্নান শাহ, শফিক  রেহমান, এ জেড এম জাহিদ  হোসেন, রুহুল আলম চৌধুরী, মাহবুব উদ্দিন খোকন, রুহুল কবীর রিজভী, আবদুস সালাম ও সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল।

খালেদা-তারেকের মনোনয়নপত্র জমা : চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদের নির্বাচনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। আর কেউ মনোনয়নপত্র না নেওয়ায় দলের দুই শীর্ষ পদে মা-ছেলের থেকে যাওয়া নিশ্চিত হয়েই আছে।

খালেদা জিয়ার পক্ষে তাঁর নির্বাচনী এজেন্ট রুহুল কবীর রিজভী এবং তারেক রহমানের পক্ষে মোহাম্মদ শাহজাহান দুপুরে নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রিটার্নিং অফিসার নজরুল ইসলামের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। মনোনয়নপত্রে খালেদা জিয়ার বয়স লেখা হয়েছে ৬৯ বছর, তারেকের ৫০। দুজনেরই ঠিকানা গুলশানের ৭৯ সড়কের ফিরোজা বাসভবন।

চেয়ারপারসন পদে খালেদা জিয়ার প্রস্তাবক স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। আর সমর্থক, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য রুহুল আলম চৌধুরী। সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে তারেক রহমানের মনোনয়নপত্রে প্রস্তাবক হিসেবে রয়েছে ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নাম। সমর্থন করেছেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান।

মন্তব্য