kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


‘দুরাচারী’ নন, ‘দার্শনিক’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



‘দুরাচারী’ নন, ‘দার্শনিক’

চীনের ইতিহাস এত দিন যে সম্রাটের সঙ্গে নির্দয় আচরণ করেছে, তাঁর সম্পর্কে নতুন করে বিশ্লেষণের সুযোগ তৈরি হয়েছে। কারণ দুই হাজার বছরের প্রাচীন এক সমাধি খুঁড়ে নানা তথ্য পাওয়া গেছে, যে সমাধিটি ওই সম্রাটের বলে জোরালো প্রমাণ পেয়েছেন পুরাতাত্ত্বিকরা।

প্রাচীন চীনা সম্রাট লিউ হে সাম্রাজ্যের দায়িত্ব গ্রহণের ২৭ দিনের মাথায় তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করে তাঁর মর্যাদা কেড়ে নেওয়া হয়। চীনের ইতিহাসে তাঁকে নীতিবিবর্জিত ও দুরাচারী বলে অভিহিত করা হয়। কিন্তু তাঁর সমাধি খুঁড়ে বাড়তি সাজসজ্জার কোনো চিহ্ন পাননি পুরাতাত্ত্বিকরা। এমনকি তাঁর সমাধির উচ্চতাও ‘মারকুইস’দের জন্য নির্ধারিত ১৩ মিটারের চেয়ে অনেক কম। তা ছাড়া তাঁর সমাধিতে যেসব লিপি পাওয়া গেছে, তাতে তিনি একজন উৎসাহী দার্শনিক ছিলেন বলে বিশ্লেষকদের ধারণা। তাঁর বুদ্ধিবৃত্তিক ব্যক্তিত্বে ক্ষিপ্ত হয়ে বিরোধীরা তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুরাতাত্ত্বিকরা আরো জানান, প্রাচীন চীনে যেকোনো ব্যক্তির সমাধিতে তাঁর পরিচয়সূচক সিল দেওয়া হতো। সম্রাট ও উচ্চ পদমর্যাদাধারীদের সমাধিতে আরেকটি বাড়তি সিল যোগ করা হতো। বিশেষজ্ঞরা এরই মধ্যে খোদাই করা স্বর্ণমুদ্রা ও বাঁশের টুকরার লিপি থেকে লিউয়ের পরিচয় নিশ্চিত হয়েছেন। তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসার জন্য তাঁরা সেই বাড়তি সিলটি খুঁজে পাওয়ার অপেক্ষা করছেন।

লিউ খ্রিস্টপূর্ব ৯২ সালে জন্মগ্রহণ করেন। বাবার মৃত্যুর পর মাত্র পাঁচ বছর বয়সে তিনি চাংহাইয়ের (বর্তমানে শানদোং প্রদেশের লাইঝোউ) যুবরাজ হন। তাঁর চাচা সম্রাট ঝাও মারা যাওয়ার পর খ্রিস্টপূর্ব ৭৪ সালে সম্রাট ফেই হিসেবে প্রতিষ্ঠা পান লিউ। কারণ তাঁর চাচার কোনো উত্তরাধিকারী ছিল না। ১৮ বছর বয়সী লিউয়ের বিরুদ্ধে অদক্ষতার অভিযোগ এনে রাজকীয় গোত্র এবং রাজ্যের ক্ষমতাবান ব্যক্তিরা তাঁকে পদচ্যুত করেন। ১০ বছর পর সম্রাট জুয়ান তাঁকে জিয়াংজি নামের এক ছোট রাজ্যের ‘মারকুইস অব হাইহুন’ পদে নির্বাচিত করেন। সূত্র : পিটিআই।


মন্তব্য