kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


দিল্লিতে সুষমা-মাহমুদ বৈঠকে সিদ্ধান্ত

জুলাইয়ে ঢাকায় বাংলাদেশ-ভারত জেসিসি বৈঠক

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জুলাইয়ে ঢাকায় বাংলাদেশ-ভারত জেসিসি বৈঠক

বাংলাদেশ ও ভারত যৌথ পরামর্শক কমিশনের (জেসিসি) বৈঠক আগামী জুলাইয়ে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এতে অংশ নিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল আসবে।

বাংলাদেশ ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের যৌথ সভাপতিত্বে ওই বৈঠক হবে। গতকাল বুধবার নয়াদিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

এবারেরটি হবে চতুর্থ জেসিসি বৈঠক। ২০১১ সালে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিংয়ের বাংলাদেশ সফরের সময় দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের যৌথ সভাপতিত্বে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সব দিক নিয়ে আলোচনার জন্য জেসিসি গঠিত হয়। এর প্রথম বৈঠক ২০১২ সালে নয়াদিল্লিতে, দ্বিতীয় বৈঠক ২০১৩ সালে ঢাকায় এবং সর্বশেষ তৃতীয় বৈঠক ২০১৪ সালে নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়নি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, মাহমুদ আলী নয়াদিল্লিতে সুষমা স্বরাজের সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে বৈঠক করেন। দুই মন্ত্রী পানিসম্পদ, ব্যবসা-বাণিজ্য এবং নিরাপত্তা ও সীমান্ত ব্যবস্থাপনাসহ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন। বৈঠকে অন্যদের মধ্যে ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে বার্তায় মাহমুদ আলী ও সুষমা স্বরাজের বৈঠকের ছবি প্রকাশ করে লিখেছেন, ‘শ্রদ্ধেয় প্রতিবেশী, গুরুত্বপূর্ণ বন্ধু। বাংলাদেশি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী (সুষমা স্বরাজ) বৈঠক করেছেন। ’

‘রাইসিনা সংলাপ’ নামে একটি আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী গত মঙ্গলবার তিন দিনের সফরে নয়াদিল্লি যান। আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও সংযোগ বৃদ্ধির উপায়সহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করতে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রতিনিধি ওই সংলাপে অংশ নিচ্ছেন। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও প্রভাবশালী নীতি গবেষণা প্রতিষ্ঠান অবজারভার রিসার্চ ফাউন্ডেশন এর আয়োজক। গত মঙ্গলবার রাইসিনা সংলাপের উদ্বোধনী প্যানেলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ছাড়াও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, আফগানিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই, শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রেসিডেন্ট চন্দ্রিকা বন্দরনায়েকে কুমারাতুঙ্গা, সিসিলির সাবেক প্রেসিডেন্ট স্যার জেমস ম্যাঞ্চাম, ওআরএফ ভারতের পরিচালক সঞ্জয় জোশী বক্তব্য দেন।


মন্তব্য