সততা থাকলে তাদের ধরে দেখিয়ে দেবেন-331214 | শেষের পাতা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১০ আশ্বিন ১৪২৩ । ২২ জিলহজ ১৪৩৭


১/১১ প্রসঙ্গে সরকারকে খালেদা জিয়া

সততা থাকলে তাদের ধরে দেখিয়ে দেবেন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সততা থাকলে তাদের ধরে দেখিয়ে দেবেন

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘বর্তমান সরকার ১/১১-এর লোকদের চেয়েও খারাপ কাজ করছে। এ জন্য একদিন তাদের জবাব দিতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘১/১১-এর কথা তিনি নিজেই (শেখ হাসিনা) উঠিয়েছেন। তিনিই তাদের শপথ অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। বলেছিলেন, ওই সরকার তাদের আন্দোলনের ফসল। তার মানে উনিই এটা করিয়েছেন। উনি তো বাদ পড়তে পারেন না। তিনি তো কাকুতি-মিনতি করে ১১ মাস পর বের হয়েছিলেন। আর আমি ফাইট করেছিলাম। দেশ ছেড়ে যাইনি। এক বছর আট দিন কারাগারে ছিলাম। আর উনি হাতে মেহেদি লাগিয়ে বিদেশ চলে গিয়েছিলেন। উনি যেসব কাজ করেছেন, ঠিক করেননি।’ 

গতকাল মঙ্গলবার রাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের কার্যালয়ে বিগত আন্দোলনে চট্টগ্রাম জেলায় হতাহত নেতাকর্মীদের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে আর্থিক অনুদান প্রদান উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

১/১১-এর প্রসঙ্গ টেনে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমি তাদের (১/১১-এর কুশীলব) বলেছি, তোমাদের কথামতো আমি চলব না। আমার একটা নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি আছে। আমি জনগণের সঙ্গে বেঈমানি করে কিছু করতে পারব না। সে জন্য আমি দেশ ছেড়ে কোথাও যাইনি। জেলখানায় ছিলাম।’ 

প্রধানমন্ত্রীকে ইঙ্গিত করে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘উনি (শেখ হাসিনা) নিজে বলেছেন, মাইনাস টু ফর্মুলা। আমরা যদি একসঙ্গে থাকতাম, তাহলে ১/১১ ওয়ালাদের কিচ্ছু করার সাহস ছিল না। এই কেইস-টেইস কারা করেছে? মাহফুজ আনাম (ডেইলি স্টার সম্পাদক), না। মাহফুজ আনাম তো স্বীকার করেছেন।’

১/১১-এর সময়কার কয়েকজন সামরিক কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘এখন গুটিকয়েক তো দেশেই আছে। তারা কেন এখনো বহাল তবিয়তে আছে? তারা কেন বাইরে আছে? তাদের কেন ধরা হয় না?’ ‘ষড়যন্ত্রে’ জড়িতদের বিচারের ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ‘আমি বলব, তাদের (সরকার) যদি সততা থাকে, সত্যি যদি উনি (প্রধানমন্ত্রী) এটা মিন করে থাকেন, তাদের ধরে দেখিয়ে দেবেন, প্রমাণ করে দেবেন, উনি এটা মিন করছেন, সত্যি বলছেন।’

দেশে আন্দোলন না থাকা সত্ত্বেও সরকারের দমন-পীড়নের কঠোর সমালোচনা করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘দেশ মোটেই ভালো নেই। প্রতিনিয়ত নেতাকর্মীদের ধরা হচ্ছে। আমাদের লোকজন জামিন পাচ্ছে, আবার জেলগেট থেকে নতুন মামলা দিয়ে কারাগারে নেওয়া হচ্ছে। এগুলো কী?’ আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটা নামমাত্র নির্বাচন। গণতন্ত্রকে তারা হাস্যাস্পদ করে ফেলেছে। কারণ এই সরকার জনগণের রায় নিয়ে ক্ষমতায় আসেনি। তারা অবৈধভাবে সরকারে আছে।’

জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক ফারহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন বক্তব্য দেন। উপস্থিত ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম খান, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খন্দকার প্রমুখ।

মন্তব্য