kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


স্পিকারের সঙ্গে শ্রীংলার সাক্ষাৎ

অর্থনৈতিক জোনে ভারতসহ বিদেশি বিনিয়োগ আহ্বান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



অর্থনৈতিক জোনে ভারতসহ বিদেশি বিনিয়োগ আহ্বান

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রায় ১০০টি অর্থনৈতিক জোনে বিনিয়োগ করতে ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উদ্যোক্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন স্পিকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপারসন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

গতকাল সোমবার বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা স্পিকারের সঙ্গে সংসদ ভবনে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ আহ্বান জানান।

সাক্ষাৎকালে তাঁরা দুই দেশের স্থল সীমান্ত চুক্তি, আন্তদেশীয় যোগাযোগ বৃদ্ধি, অবকাঠামো উন্নয়ন, রেল যোগাযোগ বৃদ্ধি, তিস্তা পানি বণ্টনসহ দ্বিপক্ষীয় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশ সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন, নারীর ক্ষমতায়ন, নারী নেতৃত্ব, জেন্ডার সমতাসহ বিভিন্ন সামাজিক নির্দেশকগুলোতে প্রভূত উন্নতি সাধন করেছে যা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে। তিনি বাংলাদেশের এ অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোকে একসঙ্গে কাজ করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী জেলা রংপুর, দিনাজপুরে বিনিয়োগকারীরা বহুতল ভবন নির্মাণসহ অবকাঠামো খাতে ব্যাপক বিনিয়োগ করেছে। তিনি বলেন, বর্তমানে ফুলবাড়ী বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে কর্মচাঞ্চল্য পরিলক্ষিত হচ্ছে।

হাইকমিশনার বলেন, ভারত ও বাংলাদেশের বন্ধুত্বের সম্পর্ক ঐতিহাসিক। দুই দেশের সংসদের মধ্যে নিয়মিত প্রতিনিধি বিনিময়ের মাধ্যমে এ সম্পর্ক আরো জোরদার হচ্ছে এবং ভবিষ্যতে এ সম্পর্ক আরো উন্নত হবে।

এ সময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশ ভারতের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক যেকোনো সময়ের চেয়ে বর্তমানে অনেক গভীর ও বন্ধুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ইতিমধ্যে যুগান্তকারী স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়িত হয়েছে। বর্তমানে তিস্তার পানি বণ্টনসহ বহু সংখ্যক দ্বিপক্ষীয় বিষয় নিয়ে আলাপ-আলোচনা চলছে।

ড. শিরীন শারমিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে বর্তমান সরকার বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রায় ১০০টি অর্থনৈতিক জোন প্রতিষ্ঠা করছে। এতে ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।


মন্তব্য