kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মনোনয়নপত্র জমা বাধামুক্ত করা নিয়ে ইসিতে দ্বিমত

বিশেষ প্রতিনিধি   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মনোনয়নপত্র জমা বাধামুক্ত করা নিয়ে ইসিতে দ্বিমত

আগামীকাল বুধবার দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। তবে প্রথম ধাপে কয়েকটি এলাকায় মনোনয়নপত্র জমায় বাধা দেওয়ার অভিযোগ আসায় নির্বাচন কমিশন এর পর থেকে একাধিক স্থানে মনোনয়নপত্র জমার সুযোগ সৃষ্টির চিন্তাভাবনা করছে।

গতকাল সোমবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ। তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়কেই নিরাপদ ভাবছি। তবে নির্বাচন কমিশনার আবদুল মোবারক গত রাতে এ প্রতিবেদককে বলেন, কমিশন বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে এখনো আলোচনাও হয়নি।

আবদুল মোবারক প্রশ্ন রাখেন, ‘কেন এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে হবে? প্রার্থীকে যদি কেউ মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা দেয় তাহলে তা হবে ফৌজদারি অপরাধ। বিষয়টি নিয়ে মামলা হওয়ার কথা। কিন্তু এ ধরনের অভিযোগে কোনো মামলা হয়েছে বলে আমাদের জানা নেই। ’

গত রাতে ইসি সচিবালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা এখনো একাধিক জায়গায় মনোনয়নপত্র জমা নেওয়ার ব্যবস্থার কথা জানি না। সে ধরনের ব্যবস্থা করতে হলে এ বিষয়ে বিধিমালা সংশোধন করতে হবে কি না, তা খতিয়ে দেখা দরকার। দ্বিতীয় ধাপের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে এ ব্যবস্থা করা প্রায় অসম্ভব। ’

দ্বিতীয় ধাপে যে এ ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব নয়, তা নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজও বলেছেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘দ্বিতীয় ধাপের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় যেহেতু প্রায় শেষ, তাই এ ধাপে এটা আর সম্ভব নয়। তবে পরবর্তী পাঁচটি ধাপে তা করা যাবে। শুধু ইউপি নয়, পরবর্তী সব নির্বাচনের জন্য একাধিক জায়গায় মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার বিষয়টি চিন্তা করছি। এ ক্ষেত্রে আমরা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসককেই চিন্তা করব। কেননা এ দুটি জায়গা নিরাপদ। ’ তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু জায়গায় মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এ কারণেই আমরা চিন্তা করছি, একাধিক জায়গায় মনোনয়নপত্র দাখিল করা যায় কি না। ’

শাহ নেওয়াজ বলেন, ‘ইউপি নির্বাচন স্থানীয় নির্বাচন। পরিচিত, আত্মীয়স্বজনের মধ্যেই নির্বাচন হবে। তাই আমরা মনে করি নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হবে। এর পরও আমরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে তত্পর থাকতে বলেছি। কয়েকটি ইউপিতে একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট দেওয়ার চেষ্টা করেছি। পরবর্তী সময়ে আরো বাড়িয়ে দেব। ’

প্রসঙ্গত, নির্বাচন কমিশন মোট ছয় ধাপে চার হাজার ২৭৯ ইউপিতে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী ২২ মার্চ প্রথম ধাপে ৭৩৮টি এবং সবশেষ ধাপে ৬৬০টি ইউপির নির্বাচন হবে রোজা শুরুর আগে আগামী ৪ জুন। এ ছাড়া এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর আগেই দ্বিতীয় ধাপে ৩১ মার্চ ৬৭২টি, ২৩ এপ্রিল ৭১১টি, ৭ মে ৭২৮টি, ২৮ মে ৭১৪টি ইউপিতে নির্বাচন হবে।

এ নির্বাচনে তফসিল অনুযায়ী আগামীকাল বুধবার প্রথম ধাপের ইউপিগুলোতে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। একই সঙ্গে এদিন দ্বিতীয় ধাপের ইউপিগুলোর ক্ষেত্রেও প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন।


মন্তব্য