kalerkantho


‘সংস্কার অনেক হয়েছে, এবার জিএসপি ফিরিয়ে দিন’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০



বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ক্রেতাগোষ্ঠীর পরামর্শ মোতাবেক বাংলাদেশ তৈরি পোশাকের কারখানাগুলোর পরিবেশ উন্নত, বিল্ডিং সেফটি, ফায়ার সেফটি নিশ্চিত করা হয়েছে। শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এখন অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধা বা জিএসপি স্থগিত রাখার কোনো কারণ নেই। যুক্তরাষ্ট্রের উচিত হবে জিএসপি বাংলাদেশকে ফিরিয়ে দেওয়া। জিএসপি স্থগিত থাকায় বাংলাদেশের তেমন আর্থিক কোনো ক্ষতি না হলেও ইমেজের ক্ষতি হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার আমেরিকান চেম্বার অফ কমার্স ইন বাংলাদেশ (অ্যামচেম) এবং মার্কিন দূতাবাস আয়োজিত তিন দিনের ‘২৬তম ইউএস ট্রেড শো-২০১৯’ এর উদ্বোধন করে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এসব কথা বলেন।

২০১২ সালে তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ড ও পরের বছর রানা প্লাজা ধসে সহস্রাধিক শ্রমিকের মৃত্যুর প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রের ‘আমেরিকান অর্গানাইজেশন অব লেবার-কংগ্রেস ফর ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের (এএফএল-সিআইও) আবেদনে ২০১৩ সালের ২৭ জুন বাংলাদেশের জিএসপি স্থগিত করা হয়। জিএসপি স্থগিতের পর ওয়াশিংটন জানায়, কারখানাগুলোর কর্মপরিবেশের উন্নতি এবং শ্রমিকদের সংগঠন করার সুযোগসহ ১৬টি শর্ত পূরণ হলে তবেই এ সুবিধা ফেরত দেওয়া হবে। সরকারের বিভিন্ন তৎপরতায় বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোর কর্মপরিবেশসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য উন্নতি হলেও এখনো যুক্তরাষ্ট্র জিএসপি ফিরিয়ে দেয়নি। আগের বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছিলেন, বাংলাদেশ আর এই সুবিধা আশা করে না। এর কোনো প্রয়োজনও নেই। এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রকে আর বলা হবে না বলেও তিনি জানিয়েছিলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে দেওয়া জিএসপি স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা উচিত। এ বিষয়ে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সুনামের সঙ্গে এবং সফলভাবে বিশ্ববাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের একক দেশ হিসেবে সবচেয়ে বড়। উভয় দেশের বাণিজ্য ব্যালান্স বাংলাদেশের পক্ষে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এবারের মেলায় ইউএস ট্রেড শোতে দেশটির ৪৬টি প্রতিষ্ঠানের ৭৪টি স্টল রয়েছে। সোনারগাঁও হোটেলের বলরুমে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। মেলায় প্রবেশ ফি ৩০ টাকা, তবে স্কুল শিক্ষার্থীরা ড্রেস পরে এবং নিজের আইডি কার্ড প্রদর্শন করে ফি ছাড়া মেলায় প্রবেশ করতে পারবে।



মন্তব্য