kalerkantho


১৬৬ বাগানে উৎপাদন ৮ কোটি ২১ লাখ কেজি গত মৌসুমের চেয়ে ৩২ লাখ কেজি বেশি

চা উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়াল

বিশ্বজ্যোতি চৌধুরী, শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার)   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



দেশে চায়ের উৎপাদন গত মৌসুমের চেয়ে ৩২ লাখ কেজি বেশি হয়েছে। প্রাকৃতিক প্রতিকূলতা কাটিয়ে এই অর্জন সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

চা বোর্ড সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালে দেশের ১৬৬টি বাগানে চা উৎপাদন হয়েছে আট কোটি ২১ লাখ কেজি। আগের বছর ২০১৭ সালে উৎপাদন হয়েছিল সাত কোটি ৮৯ লাখ কেজি। ২০১৬ সালের মোট উৎপাদন ছিল আট কোটি ৫০ লাখ ৫০ হাজার কেজি। তখন বছরজুড়ে চা চাষের অনুকূল প্রাকৃতিক পরিবেশ বজায় ছিল। গত তিন বছর চায়ের গড় উৎপাদন ছিল আট কোটি ২০ লাখ কেজি।

চা শিল্পসংশ্লিষ্টরা জানান, মৌসুমের শুরুতে (ফেব্রুয়ারি-মার্চ, ২০১৮) অনাবৃষ্টির কারণে তাঁরা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে বেশ শঙ্কিত ছিলেন। উৎপাদন মৌসুমের শুরুতে বৃষ্টি না হওয়ায় চা-পাতা চয়ন সময়মতো  শুরু করা যায়নি। ২০১৮ সালে দেশে চা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় সাত কোটি ২৩ লাখ ৯০ হাজার কেজি। গত সেপ্টেম্বর পর্যন্ত (৯ মাসে) দেশে সব মিলিয়ে ছয় কোটি ৬৭ লাখ ৩১ হাজার কেজি চা উৎপাদন হয়। তবে সিলেট চট্টগ্রাম অঞ্চলে চা চাষের উপযোগী সুষম বৃষ্টি হওয়ায় বছর শেষে চা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যায়। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ৮৯ লাখ কেজি চা বেশি উৎপাদন হয়। শ্রীমঙ্গলে চা বোর্ডের প্রকল্প উন্নয়ন ইউনিট (পিডিইউ) সূত্র জানায়, ২০০৯ সালে চাশিল্পের উন্নয়নে নেওয়া কৌশলগত পরিকল্পনার অংশ হিসেবে চা চাষের আওতা বাড়ানো হয়। প্রথম ধাপে বান্দরবানের রুমায় এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। চা বোর্ডের প্রকল্প উন্নয়ন ইউনিটের (পিডিইউ) পরিচালক ড. এ কে এম রফিকুল হক বলেন, ‘চা গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিটিআরআই) বিভিন্ন উপকেন্দ্রে ক্ষুদ্র পর্যায়ে চা চাষিদের জন্য ক্ষুদ্রায়তন চা আবাদ, প্লাকিং, রোগবালাই ও পোকামাকড় দমন বিষয়ে এবং দেশের চা বাগানগুলোর ব্যবস্থাপক ও সহকারী ব্যবস্থাপকদের দক্ষতা উন্নয়নে নিয়মিত প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার হচ্ছে। ফলে প্রকৃতি নির্ভরতা কাটিয়ে উৎপাদন বাড়ানো সম্ভব হচ্ছে।’

বাংলাদেশ চা গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিটিআরআই) পরিচালক ড. মোহাম্মদ আলী বলেন, হেক্টরপ্রতি চায়ের উৎপাদন বাড়াতে হবে এবং এটা সম্ভব। যদিও এটা চা বাগান ব্যবস্থাপনার ওপর অনেকাংশে নির্ভর করে। এর পরও চা বাগানের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ উৎপাদন বাড়াতে নিজেদের বাগানে উদ্যোগ নিয়েছেন।



মন্তব্য