kalerkantho


ফ্রাংকফুর্টে টেক্সটাইল প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ

চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে প্রবৃদ্ধি ধরে রাখবে বাংলাদেশের পোশাক খাত গুন্টার ফাইট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



ফ্রাংকফুর্টে টেক্সটাইল প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ

জার্মানির ফ্রাংকফুর্ট শহরে টেকনিক্যাল টেক্সটাইল ও বিশেষায়িত টেক্সটাইল নিয়ে চার দিনের প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ। আগামী ১৪ থেকে ১৭ মে জার্মানির ফ্রাংকফুর্টে অনুষ্ঠিত হবে টেকটেক্সটাইল ও টেক্সপ্রসেস  প্রদর্শনী। নতুন নতুন প্রযুক্তি ও নানা উদ্ভাবনের সমন্বয় থাকছে এ প্রদর্শনীতে। এতে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে টেক্সটাইল খাতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও রোবটিকসের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার নানা দিক নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানিয়েছে আয়োজক সংস্থা মেসে ফ্রাংকফুর্ট।

গতকাল রবিবার ঢাকায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা বলেন, গত বছরের মেসে ফ্রাংকফুর্টের প্রদর্শনীগুলোতে সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ২২ হাজার প্রদর্শক এবং পাঁচ লাখ ২০ হাজার বাণিজ্য প্রতিনিধি অংশ নেন। আগামী টেকনিক্যাল টেক্সটাইলের মধ্যে জিও টেক্সটাইল, মেডিক্যাল, সেফটি এবং সিকিউরিটি পোশাক, প্রতিরক্ষামূলক পোশাক এবং খেলাধুলার উপযোগী কাপড়ের প্রদর্শনী থাকবে। বাংলাদেশ থেকেও বেশ কয়েটি কম্পানি এতে অংশ নিচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে মেসে ফ্রাংকফুর্ট বাংলাদেশের সিইও ওমর সালাউদ্দিন, ভিডিএমএর চেয়ারম্যান গুন্টার ফাইট উপস্থিত ছিলেন।

গুন্টার ফাইট বলেন, বিশ্বব্যাপী টেক্সটাইল উৎপাদনে টেকনিক্যাল টেক্সটাইলের অংশ ক্রমেই বাড়ছে। বর্তমানে এটি ২৭ শতাংশ। ২০২০ সালের মধ্যে এই বাজার দ্বিগুণ বাড়বে এবং যার আকার দাঁড়াবে ১৭৫ বিলিয়ন ডলার। যেখানে ২০০০ সালে এই বাজারের আকার ছিল ৯৩ বিলিয়ন ডলার।

ওমর সালাউদ্দিন বলেন, বাংলাদেশ থেকে আগের প্রদর্শনীতে বেশ কিছু প্রদর্শক গেছে নতুন কৌশল ও উদ্ভাবন সম্পর্কে জানতে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো জায়ান্ট গ্রুপ, মেট্রো গ্রুপ, নাসা গ্রুপ, এভিন্স গ্রুপ, ডেকো গ্রুপ, ইসলাম গার্মেন্টসহ আরো অনেকে।

 



মন্তব্য