kalerkantho


চুক্তি ছাড়া ব্রিটেন ইইউ ত্যাগ করলে অর্থনীতি সংকুচিত হবে

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



চুক্তি ছাড়া ব্রিটেন ইইউ ত্যাগ করলে অর্থনীতি সংকুচিত হবে

একটি ব্রেক্সিট চুক্তি ছাড়া যদি ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ত্যাগ করে তবে দেশটির অর্থনীতি সংকুচিত হবে। যে শর্তেই দেশটি বের হোক না কেন, বেশ কিছু খাত ক্ষতিগ্রস্ত হবে। গতকাল সোমবার এ সতর্কবার্তা দিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। যদিও ব্রেক্সিট সমর্থকরা বলেছিল অর্থনীতিতে এর প্রভাব পড়বে না।

আইএমএফ মনে করে, ব্রিটেন যদি নিজেদের অনুকূলে যথাযথ ব্রেক্সিট চুক্তি করতে না পারে তবে ২০১৮ সালে দেশটির প্রবৃদ্ধি কমে হবে প্রায় ১.৫ শতাংশ এবং ২০১৯ সালেও একই থাকবে, যা জার্মানি ও ফ্রান্সের চেয়ে কম হবে। আইএমএফের এমডি ক্রিস্টিন লাগার্দে বলেন, ‘আমি বেপরোয়াভাবে আশাবাদী, খুব বেশি আশা করছি এবং প্রার্থনা করছি যেন ইইউ এবং যুক্তরাজ্যের মধ্যে একটি চুক্তি সম্পাদিত হয়। যদি চুক্তি করতে ব্যর্থ হয় তবে অর্থনীতি নিশ্চিতভাবে সংকুচিত হবে।’

ব্রিটেনে আইএমএফের বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশকালে লাগার্দে বলেন, ‘আমি বিষয়টি স্পষ্ট করছি। ব্রিটেন এখন যে একক বাজারের সুবিধা উপভোগ করছে। ব্রেক্সিট হয়ে গেলে তা আর পারবে না। সে ক্ষেত্রে অর্থনীতিতে খরচ বেড়ে যাবে। কারণ তখন বাণিজ্য আর সরাসরি থাকবে না। ফলে নতুন সম্পর্কে বাণিজ্যিক বাধা যত থাকবে, খরচও তত বাড়বে।’

আগামী ছয় মাসের মধ্যে ব্রিটেন ইইউ ত্যাগ করার কথা, কিন্তু এখন পর্যন্ত লন্ডন ও ব্রাসেলস সহজ প্রস্থানের কোনো চুক্তিতে উপনীত হতে পারেনি। ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে আশা প্রকাশ করেছেন একটি চুক্তির দিকেই তাঁরা এগিয়ে যাবেন।

তবে আইএমএফের এ সতর্কবার্তাকে সমালোচনা করে অ্যারবুথনট ব্যাংকিং গ্রুপের অর্থনীতিবিদ এবং ব্রেক্সিট অ্যাডভুকেট রুথ লি বলেন, আইএমএফ নতুন করে ‘প্রজেক্ট ফিয়ার’ তৈরি করছে। ব্রেক্সিট ভোটের আগে সমর্থকরা বিরোধীদের ভীতি প্রদর্শনকে এ টার্মে অভিহিত করেছিল। তিনি বলেন, ‘এসব কথা বলা বন্ধ করা উচিত, যখন আপনি নিজেই জানেন না আসলে কী হবে।’ রয়টার্স।



মন্তব্য