kalerkantho


পুঁজিবাজারের লেনদেন হাজার কোটি ছাড়াল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস গতকাল বৃহস্পতিবার দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক কমলেও লেনদেন বেড়েছে। এতে লেনদেন এক হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে, যা চলতি বছরের ২৩ জুলাইয়ের পর সর্বোচ্চ লেনদেন। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্যসূচক কমার সঙ্গে কমেছে লেনদেনও। একই সঙ্গে দুই বাজারেই বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ারের দামও হ্রাস পেয়েছে।

বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে এক হাজার ৬৪ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছে ২৯ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৮৬১ কোটি সাত লাখ টাকা। আর সূচক কমেছিল ১৪ পয়েন্ট।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর সূচক কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী হলেও পরবর্তীতে হ্রাস পেয়েছে। শেয়ার বিক্রির চাপ থাকায় দিন শেষে সূচক কমার মধ্য দিয়েই লেনদেন শেষ হয়েছে। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৫০০ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ১২ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৯১৯ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে এক হাজার ২৭১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেনে ৩২৬ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৪টির, কমেছে ১৮৯টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৩ কম্পানির শেয়ারের দাম।

লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে অ্যাক্টিভ ফাইন। কম্পানিটির লেনদেন হয়েছে ৮৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইফাদ অটোসের লেনদেন হয়েছে ৮০ কোটি চার লাখ টাকা। আর তৃতীয় স্থানে থাকা খুলনা পাওয়ারের লেনদেন হয়েছে ৬৪ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। অন্যান্য শীর্ষ কম্পানি হচ্ছে বিবিএস কেবলস, সিঙ্গার বিডি, শাশা ডেনিমস, আমান ফিডস, ফরচুন শুজ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ও ইউনাইটেড পাওয়ার।

সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছে ৩৫ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪২ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। আর সূচক কমেছিল ২২ পয়েন্ট। বৃহস্পতিবার লেনদেন হওয়া ২৩০ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৯০টির, দাম কমেছে ১২২টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮ কম্পানির শেয়ারের দাম।



মন্তব্য