kalerkantho


পুঁজিবাজারে বড় উত্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



পুঁজিবাজারে বড় উত্থান

মন্দাবস্থার মধ্য দিয়ে চলতে থাকা পুঁজিবাজার হঠাৎ তেজি হয়ে উঠেছে। লেনদেনে হ্রাস-বৃদ্ধি থাকলেও সূচকের উত্থান অব্যাহত রয়েছে। ব্যাংক ও নন-ব্যাংকিং আর্থিক খাতের শেয়ারের দামে উল্লম্ফন ঘটেছে। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস গতকাল রবিবার দেশের দুই পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বড় উত্থান হয়েছে। বেশির ভাগ কম্পানির শেয়ারের দাম কমলেও শেয়ার কেনার চাপ বেশি থাকায় সূচকও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ব্যাংক খাতের ৯৩ শতাংশ আর নন-ব্যাংকিং আর্থিক খাতের শতভাগ কম্পানির শেয়ারের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। গত কয়েক দিন থেকেই টানা বাড়ছে আর্থিক খাতের কম্পানির শেয়ারের দাম। বাজারসংশ্লিষ্টরা বলছেন, দীর্ঘ সময় আর্থিক টানাপড়েনে থাকা রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান আইসিবির ভূমিকায় ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে বাজার। ঈদের আগে আইসিবি শেয়ার কেনায় বাজার তেজি হয়ে উঠেছে।

রবিবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৬০ কোটি ৫৭ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে ৭০ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৫৮০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছিল ৫৯ পয়েন্ট। সেই হিসাবে লেনদেন কমলেও বেড়েছে সূচক।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর থেকেই শেয়ার কেনার চাপে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সূচকও ক্রমাগত ঊর্ধ্বমুখী হয়। এতে দিন শেষে শেয়ার কেনার চাপে সূচক বৃদ্ধির মধ্য দিয়েই লেনদেন শেষ হয়েছে। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৫৩৮ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ২৩ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ৯৩৮ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে এক হাজার ২৫০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া ৩৩৩ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১২৭টির, কমেছে ১৮৩টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩ কম্পানির শেয়ারের দাম।

এদিকে খাতভিত্তিক হিসাবে দেখা যায়, রবিবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৯৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে। তালিকাভুক্ত ৩০ কম্পানির মধ্যে ২৮টির শেয়ারের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। আর দুটির শেয়ারের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। আর নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সব কম্পানির শেয়ারের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। তালিকাভুক্ত ২৩টি কম্পানির মধ্যে সব শেয়ারের দামই ঊর্ধ্বমুখী।

ডিএসইতে লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে বিবিএস কেবলস। কম্পানিটির লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের লেনদেন হয়েছে ২০ কোটি ৭১ লাখ টাকা আর তৃতীয় স্থানে থাকা সিটি ব্যাংকের লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি ৩১ লাখ টাকা। অনান্য শীর্ষ কম্পানি হচ্ছে ঢাকা ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, ইফাদ অটোস, ন্যাশনাল ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক ও ইউনাইটেড পাওয়ার।

মূল্যবৃদ্ধির শীর্ষে রয়েছে রিপাবলিক ইনস্যুরেন্স, ন্যাশনাল হাউজিং, মাইডাস ফাইন্যান্স, আইপিডিসি, শাহ্জালাল ব্যাংক, প্রিমিয়ার লিজিং, বিডি ফাইন্যান্স, ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক ও আইডিএলসি। অন্যদিকে দাম কমার শীর্ষে রয়েছে ড্রাগন সোয়েটার, জুট স্পিনার্স, পেনিনসুলা চিটাগাং, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, কে অ্যান্ড কিউ, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, প্রভাতী ইনস্যুরেন্স, দুলা মিয়া কটন, আজিজ পাইপস ও অ্যাপেক্স ফুড।

অপর বাজার সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৬ কোটি ৩৫ লাখ টাকা আর সূচক বেড়েছে ১১৭ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২৫ কোটি ৬৮ লাখ টাক। রবিবার লেনদেন হওয়া ২৪৬ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৯৭টির, দাম কমেছে ১৩৫টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৪ কম্পানির শেয়ারের দাম।

লেনদেন বন্ধ থাকবে পাঁচ দিন : ঈদুল আজহায় দেশের দুই পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) বন্ধ থাকবে পাঁচ দিন। সরকারি ছুটির সঙ্গে মিলিয়ে তিন দিন আর দুই সাপ্তাহিক বিরতি মিলে পাঁচ দিন শেয়ার লেনদেন হবে না।

সূত্র জানায়, আজ সোমবার ঈদের আগে পুঁজিবাজারে শেষ লেনদেন। আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে ২৫ আগস্ট শনিবার পর্যন্ত পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে। ২৬ আগস্ট রবিবার থেকে আবারও যথারীতি লেনদেন চালু হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ২২ আগস্ট ঈদুল আজহা পালিত হবে। এ জন্য ২১ থেকে ২৩ তারিখ পর্যন্ত সরকারি ছুটি থাকবে। এর সঙ্গে শুক্রবার ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি যুক্ত হয়ে পাঁচ দিন বন্ধ পুঁজিবাজার।



মন্তব্য