kalerkantho


রমজান মাসজুড়ে কলকাতার হট কেক ‘হালিম’

কলকাতা প্রতিনিধি   

১৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



রমজান মাসজুড়ে কলকাতার হট কেক ‘হালিম’

কলকাতায় চিতপুর রোডের রয়াল রেস্টুরেন্টের মজাদার হালিম খেতে রোজাদারদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের ভিড় লেগে থাকে রমজান জুড়ে। ছবি : অঙ্কিত দত্ত

কলকাতায় চিতপুর রোডের রয়্যাল রেস্টুরেন্টে সারা বছর মানুষ বিরিয়ানি, চিকেন চাপ খেতে ভিড় করে। রমজান মাসেও এই আইটেম দুটি বিক্রিতে কমতি নেয়। কিন্তু এই পবিত্র রমজান মাসে হালিম যেন ‘হট কেক’। আর এই সুস্বাদু হালিমের চাহিদা শুধু রোজাদারদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়।

জাকারিয়া স্ট্রিটকে কলকাতার ফুড স্ট্রিট বলা যেতে পারে এই রমজান মাসে। ঘিঞ্জি রাস্তায় চারধারে পাওয়া যাচ্ছে নানা রকমের ইফতারি আইটেম, কোথাও কাবাব, কোথাও রঙ বেরঙের শরবত, দেশ-বিদেশের খেজুর, হালিম, নানা রকমের ভাজাভুজি।

প্রতিবছর রমজান মাসে আমি এখানে আসি, ইফতারের সব আইটেম উপভোগ করতে জানালেন অরণ্য মজুমদার। তবে হালিমটায় মেইন আকর্ষণ হেসে ফেললেন মাঝবয়সী অরণ্য। চিতপুরের রয়্যাল, পার্ক সার্কাসের আরসালান, এস এন ব্যানার্জি রোডের আমিনিয়া, বেনটিংক স্ট্রিটের আলিয়াহ- কলকাতায় হালিম খাওয়ার জায়গার অভাব নেই।

‘আমরা ৪০০ বাটি দিয়ে শুরু করেছিলাম কিন্তু এত চাহিদা, আমরা ৬০০ বাটি করে দিয়েছি’ জানালেন, আলিয়াহ দোকানের কাউন্টারে বসে থাকা বয়স্ক মানুষটি।

তিনি আরো বললেন, ‘সব রকম মানুষ আসেন হালিম খেতে আর এটাই কলকাতার সব থেকে বড় ঐতিহ্য।’

‘প্রতিবছর রমজান মাসে প্রতিদিন ৪০ কেজির মতো মাটন হালিম বিক্রি হয়, তবে বন্ধের দিন চাহিদা বেশি থাকে হালিমের। ওই দিন প্রায় ৫০ কেজি বিক্রি করে থাকি। আবার অনেকে ঈদের দিনেও ফোন করে জিজ্ঞেস করেন হালিম পাওয়া যাবে? আমাদের তাদের আবার জানাতে হয় শুধু রমজান মাসেই আমরা হালিম তৈরি করি’ মুখে মিষ্টি হাসি দিয়ে বললেন কাউন্টারে বসে থাকা লোকটি।

রয়্যালের সামনে যে মানুষের ভিড় জমেছিল, তাঁদের মধ্যে ছিলেন ঢাকার ধানমণ্ডির বাসিন্দা মুহিত হাসান। তিনি জানালেন, চিতপুর রোডে ওনার আসার কারণও এই হালিম। মুহিত চুপচাপ দাঁড়িয়ে ছিলেন।

 


মন্তব্য