kalerkantho


টেকসই উন্নয়নে সংসদে বস্ত্র বিল উত্থাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



গার্মেন্ট শিল্পসহ বস্ত্র খাত সম্পসারণ ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে জাতীয় সংসদে ‘বস্ত্র বিল-২০১৮’ উত্থাপন করা হয়েছে। গতকাল রবিবার বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বিলটি উত্থাপনের পর তা অধিকতর পরীক্ষার জন্য বস্ত্র ও পার্ট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। কমিটিকে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে সংসদে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

সংসদে উত্থাপিত বিলে বলা হয়েছে, সরকার বস্ত্র খাতে সরকারি-বেসরকারি, বৈদেশিক, বহুজাতিক কম্পানি, দেশি-বিদেশি ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বসহ অন্য কোনো প্রচলিত পদ্ধতিতে প্রয়োজনীয় বিনিয়োগ আকর্ষণের উদ্যোগ নিতে পারবে। তবে রপ্তানিমুখী বস্ত্রশিল্পে ব্যবহার বা প্যাকেজিংয়ের জন্য আমদানি করা কাঁচামাল রপ্তানিবহির্ভূত বস্ত্রশিল্পে ব্যবহারের উদ্দেশ্যে বিক্রি বা বাজারজাত করা যাবে না।

খসড়া আইনে বায়িং হাউসের নিবন্ধনের বিধান রাখা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে বস্ত্র অধিদপ্তরের মহাপরিচালক নিবন্ধকের দায়িত্ব পালন করবেন। সরকার প্রয়োজনে বিধির মাধ্যমে নির্ধারিত পদ্ধতিতে ও শর্তে বস্ত্রশিল্পকে প্রণোদনা দিতে পারবে বিলে সেই বিধান রাখা হয়েছে।

বিলে রাষ্ট্রায়ত্ত মিলগুলোর ব্যবস্থাপনা, তদারকি ও আধুনিকায়নের সুযোগ রাখা হয়েছে। এ ছাড়া উত্পাদন উপকরণের মান নিয়ন্ত্রণ, তদারকি ও সমন্বয়, কাঁচামাল আমদানি ও রপ্তানি, নিরাপত্তা ও কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করা হয়েছে। এ ছাড়া বস্ত্র খাতে দক্ষ জনবল সৃষ্টি, মানবসম্পদ উন্নয়নের লক্ষ্যে বিদ্যমান শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি নতুন বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, ডিপ্লোমা ও ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট, ফ্যাশন ইনস্টিটিউট, প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের সুযোগ রাখা হয়েছে।



মন্তব্য