kalerkantho


তামাকপণ্যে কার্যকর কর আরোপ করা হয়নি : প্রজ্ঞা ও আত্মা

বাণিজ্য ডেস্ক   

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



তামাকপণ্যে কার্যকর কর আরোপ করা হয়নি : প্রজ্ঞা ও আত্মা

২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে তামাকপণ্যে কার্যকর কর আরোপ করা হয়নি বলে দাবি করেছে প্রজ্ঞা ও আত্মা। বাজেট প্রতিক্রিয়ায় সংস্থা দুটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তিন বছর ধরে দামি সিগারেটের দাম (১০ শলাকা ১০১ টাকা) অপরিবর্তিত রাখার মাধ্যমে বহুজাতিক তামাক কম্পানিগুলোর মৃত্যুবিপণন ব্যবসা সম্প্রসারণের সুযোগ অব্যাহত থাকল এবারের বাজেটেও। অথচ গত তিন বছরে জনগণের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি বিবেচনায় নিলে এই প্রস্তাব জনস্বাস্থ্যবিরোধী। পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, ২০১৫-১৬ সালের তুলনায় ২০১৭-১৮ সালে জাতীয় মাথাপিছু আয় (নমিনাল) বেড়েছে ২৪.৬৪ শতাংশ। অথচ এই একই সময়ে এই স্তরের সিগারেটের দাম না বাড়ায় এর প্রকৃত মূল্য কমে যাওয়ার পাশাপাশি সরকারও বাড়তি রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। একই সঙ্গে গ্রামীণ সমাজে বহুল ব্যবহৃত বিড়ির দাম প্রস্তাবিত বাজেটে অপরিবর্তিত রাখার ফলে নিম্ন আয়ের দরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকিও বেড়ে যাবে।

প্রস্তাবিত বাজেটে উচ্চস্তরে ১০১ টাকা মূল্যের ১০ শলাকা সিগারেটের দাম এবং সম্পূরক শুল্ক ৬৫% অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে, যা খুবই হতাশাজনক। এ ছাড়া উচ্চস্তরে ৭০ টাকা মূল্যের ১০ শলাকা সিগারেটের দাম মাত্র ৭ শতাংশ বৃদ্ধি করে ৭৫ টাকা নির্ধারণ এবং ৬৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক অপরিবর্তিত রাখার মাধ্যমে বহুজাতিক তামাক কম্পানিগুলোকেই লাভবান হওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। মধ্যম স্তরে ৪৫ টাকা মূল্যের ১০ শলাকা সিগারেটের দাম ৪৮ টাকা নির্ধারণ করে সম্পূরক শুল্ক ৬৩ শতাংশ এর স্থলে ৬৫ শতাংশ আরোপ করা হয়েছে। অন্যদিকে, প্রতি ১০ শলাকা সিগারেটের সর্বনিম্ন মূল্য (নিম্নস্তর) ২৭ টাকার স্থলে ৩২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে এবং এই স্তরের সম্পূরক শুল্ক মাত্র ৩ শতাংশ বাড়িয়ে ৫২ শতাংশ থেকে ৫৫% নির্ধারণ করা হয়েছে। জনগণের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি এবং মূল্যস্ফীতি বিবেচনায় নিলে সিগারেটের এই মূল্যবৃদ্ধি অতি নগণ্য এবং এর ব্যবহার কমাতে কোনো কার্যকর ভূমিকা রাখবে না। তামাকবিরোধীদের দীর্ঘদিনের দাবি একক কর কাঠামো ও সুনির্দিষ্ট কর পদ্ধতি প্রচলনের কোনো নির্দেশনা এবারের বাজেট ঘোষণায় প্রতিফলিত হয়নি।



মন্তব্য