kalerkantho


প্রযুক্তিবিভ্রাটে বিঘ্নিত অনলাইন ব্যাংকিং

শেখ শাফায়াত হোসেন   

১৯ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



প্রযুক্তিবিভ্রাটে বিঘ্নিত অনলাইন ব্যাংকিং

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সিআইবি অনলাইন প্রায় দুই সপ্তাহ অকার্যকর থাকার পর আবার সচল হয়েছে। তবে তাত্ক্ষণিক অনলাইন ফান্ড ট্রান্সফার সুবিধার জন্য চালু করা রিয়েল টাইম গ্রস সেটলমেন্ট (আরটিজিএস) এখনো ধীরগতিতে কাজ করছে বলে জানা গেছে। ব্যাংক কর্মকর্তারা বলছেন, অনলাইন ফান্ড ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে অনেক সময় লাগছে, কোনো কোনো ক্ষেত্রে সকালে পোস্টিং দিলে পেমেন্ট হচ্ছে বিকেলে। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, আগে যেখানে অসংখ্য লেনদেন নিষ্পত্তি হতো আরটিজিএসএর মাধ্যমে এখন সেখানে প্রতিদিন লেনদেন হচ্ছে ১৫০০-১৬০০।

এ ছাড়া গত ৬ মার্চ ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ বাংলাদেশও (এনপিএসবি) সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ থাকায় আন্ত ব্যাংক এটিএম লেনদেন কিছু সময়ের জন্য ব্যাহত হয়।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নেটওয়ার্ক ও ডাটা সেন্টারে নতুন কিছু ডিভাইস বসানো হয়েছে। এসব ডিভাইসের মধ্যে সিকিউরিটি ডিভাইসও আছে। এর ফলে পুরনো কনফিগারেশন পরিবর্তন করে নতুন কিছু কনফিগারেশন দেওয়া হয়েছে। এই কাজগুলোর যথাযথ পরিকল্পনা, সঠিক তদারকি ও প্রিভেনটিভ মেইনটেন্যান্স না থাকা, সর্বোপরি বিজনেস কনটিনিউটি প্ল্যান ও প্রভাব বিশ্লেষণ না থাকায় বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর অনলাইন ব্যাংকিং সেবা দ্রুততর করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দেওয়া এই সাপোর্টিং প্রগ্রামগুলোতে বিঘ্ন ঘটছে বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একটি সূত্র জানিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন ব্যাংক কর্মকর্তা এই প্রযুক্তিবিভ্রাটকে অনলাইননির্ভর ব্যাংকিং লেনদেনের জন্য হুমকি বলে উল্লেখ করেন।

গত ৬ মার্চ থেকে সিআইবি অনলাইন অকার্যকর হয়ে পড়ে। গত সপ্তাহের শেষ দিকে এসে সিআইবি অনলাইন ফের সচল হয়। এই সময়ে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর ঋণ বিতরণ কর্যক্রম ব্যাহত হচ্ছিল বলে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের এক গ্রাহক জানান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই গ্রাহক কালের কণ্ঠকে বলেন, কয়েক দিন ধরে ঋণসংক্রান্ত কাজে ব্যাংকটির কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে সিআইবি অনলাইন বন্ধের কারণে কাজটি দেরি হচ্ছে বলে জানতে পারেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক দেবাশিস্ চক্রবর্ত্তী বলেন, ‘সিআইবি অনলাইন কয়েক দিন অকার্যকর থাকার পর গত মঙ্গলবার থেকে আবার চালু হয়েছে।’ এর আগে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের এমডি আনিস এ খান জানান, গত মঙ্গলবার তারা সিআইবি অনলাইন সচল পেয়েছিলেন।

তবে দিনের শেষ ভাগে এসে সিআইবি অনলাইন আবারও অকার্যকর হয়ে পড়ে জানিয়ে দেবাশিস্ চক্রবর্ত্তী বলেন, ‘চালু করার চেষ্টা চলছে। আশা করা যায় রাতের মধ্যেই ঠিক হয়ে যাবে। গতকাল রবিবার কয়েকটি বাণিজ্যিক ব্যাংকের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সিআইবি অনলাইন এখন সচল পাওয়া যাচ্ছে।

এই সমস্যাগুলো কেন হচ্ছিল জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুখপাত্র দেবাশিস্ চক্রবর্ত্তী বলেন, ‘এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব নয়, এমন কিছু সমস্যার মুখে পড়ায় আরটিজএস কিছুটা বাধাগ্রস্ত হচ্ছিল।’ এ ছাড়া এনপিএসবি গত ৬ মার্চ বন্ধ থাকার কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘ব্যাংকগুলোর দিক থেকে কিছু সমস্যা ছিল, তাদের প্রয়োজনে এনপিএসবি সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ রাখা হয়।’



মন্তব্য