kalerkantho


ইন্ডিয়ান অ্যাগ্রো বায়ারস-সেলারস মিট

‘সম্পর্ক কাজে লাগিয়ে বাণিজ্য বাড়াতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



ভারত এবং বাংলাদেশ বন্ধু প্রতিবেশী। দুই দেশের সম্পর্ককে কাজে লাগিয়ে কিভাবে দুই দেশের বাণিজ্য বাড়ানো যায় সে বিষয়ে ব্যবসায়ীদের কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। গতকাল রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত ‘দ্য ইন্ডিয়ান অ্যাগ্রো বায়ারস-সেলারস মিট ২০১৮’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ পরামর্শ দেন। দ্য অ্যাগ্রিকালচারাল অ্যান্ড প্রসেসড ফুড প্রডাক্টস এক্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট অথরিটি (এপিইডিএ), দ্য ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এবং দ্য ইন্ডিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। দুই দিনের এই অনুষ্ঠানে ২০টি ভারতীয় কম্পানি পণ্য প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছে।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ভারত-বাংলাদেশের বন্ধুত্ব অকৃত্রিম। দেশ দুটির যে অবস্থান তাতে বাণিজ্যে সবারই উইন উইন অবস্থা। কারোর হারার কোনো সুযোগ নেই। আর অবস্থাকে কাজে লাগিয়ে দুই দেশের ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসাকে আরো বাড়াতে পারে। আর ভারত আমাদের ব্যবসায়ীদের জন্য পাঁচ বছরের যে মাল্টিপল ভিসার ব্যবস্থা করেছে সেটাকে আরো কিভাবে সহজ করা যায় সেটা ভাবতে পারে।’

এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, ‘বাংলাদেশে খাদ্যপণ্য উৎপাদন প্রতিবছর গড়ে ২ শতাংশ করে বাড়ছে। আমরা অনেক কিছুই উৎপাদন করছি; কিন্তু আধুনিক সংরক্ষণাগার না থাকার কারণে প্রসেস ফুডে আমরা ভালো করতে পারছি না। এখানে আমরা ভারতের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করতে পারি। কারণ ভারতের আধুনিক প্রযুক্তি এবং সংরক্ষণাগার রয়েছে।’

তবে অ্যাগ্রো এবং অ্যাগ্রো প্রসেস ফুডে দেশের বেসরকারি খাত ধীরে ধীরে ভালো করছে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের জন্য ভারতে অনেক সুযোগ রয়েছে; কিন্তু এখনো দুই দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে অনেক গ্যাপ রয়েছে।

এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি মাতলুব আহমাদ ভারতীয় ব্যবসায়ীদের এ দেশে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘রপ্তানির জন্য বাংলাদেশ যেমন ভালো, বিনিয়োগের জন্যও তেমনি ভালো।’

ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেন, বাংলাদেশ অ্যাগ্রো প্রসেস ফুড, মৎস্য এবং আরো অনেক খাতে ধারাবাহিক উন্নতি করছে। যেখানে দুটি দেশ একসঙ্গে কাজ করতে পারে। প্রযুক্তির সরবরাহ, যৌথ উদ্যোগের মাধ্যমে বড় সাপ্লাই চেইন প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব বলে জানান তিনি।


মন্তব্য