kalerkantho


সরকারি দপ্তরে ঘুষ চাইলে দুদককে জানান

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে দুদক চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



সরকারি দপ্তরে ঘুষ চাইলে দুদককে জানান

সরকারি দপ্তরে গিয়ে ঘুষ বা অনৈতিক কোনো কর্মকাণ্ডের মুখোমুখি হলে ব্যবসায়ীদের এর থেকে দূরে থাকতে বললেন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। এমন পরিস্থিতিতে পড়লে বিষয়টি দুদককে অবহিত করার পরামর্শ দিয়ে সংস্থাটির চেয়ারম্যান বলেন, ‘এ ক্ষেত্রে অভিযোগকারী ব্যাবসায়ীকে যাতে পরবর্তী সময়ে কোনো অসুবিধায় পড়তে না হয়, সে বিষয়টি দুদক দেখবে।’

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ করে ইকবাল মাহমদু বলেন, ‘ব্যবসা করতে আপনাদের অনেক সময় সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নানা ধরনের অনুমোদনের জন্য যেতে হয়। সেখানে অনেক ধরনের আমলাতান্ত্রিক জটিলতা আছে। কোনো কর্মকর্তা যদি ফাইল ছাড়তে গড়িমসি করেন, হয়রানি করেন বা অনৈতিকভাবে কোনো কিছু চান, আপনারা সেটা দেবেন না। আমাদের (দুদক) জানাবেন। আপনাদের ব্যবসার পথ চিরদিনের জন্য মসৃণ করার দায়িত্ব আমাদের।’

গতকাল রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও ব্যবসাবান্ধব পরিবেশের জন্য স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক সরকারি সেবা নিশ্চিতকরণ’ শীষর্ক এক আলোচনাসভায় দুদক চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। দুদক ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) যৌথভাবে ওই আলোচনাসভার আয়োজন করে। সভায় বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ঋণখেলাপিদের নিয়ে দুদকের তদন্ত নিয়ে ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক রয়েছে উল্লেখ করে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। দুদক ঋণখেলাপিদের পেছনে ছুটছে না। এটা আমাদের কাজও নয়। আমরা শুধু ভুয়া নথিপত্র দিয়ে ঋণ নিচ্ছে কি না, সেটা দেখি।’

গত বছর ঘুষের অর্থসহ ২৫ জন কর্মকর্তাকে হাতেনাতে ধরা হয়েছে উল্লেখ করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘দুদকের মামলাগুলো আসলেই ভয়ংকর। এই মামলায় একবার কেউ পড়লে কত দিনে এই মামলা শেষ হবে, তা নিশ্চিত করে বলা যায় না। আপনারা কোনো আইন ভঙ্গ করবেন না, দুদক আপনাদের জন্য স্বর্গ হবে। আইন ভঙ্গ করলে এটা নরকের আজাবের মতো মনে হবে।’

বিডার চেয়ারম্যান কাজী আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘অগ্রগতির অন্যতম একটি উপায় হলো দুর্নীতি ন্যূনতম পর্যায়ে নিয়ে আসা। আমরা সব সময় সেটা করতে সচেষ্ট ভূমিকা রেখে আসছি।’ বিএমসিসিআই সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘ব্যবসার কাজে সরকারি দপ্তরগুলোতে গিয়ে ব্যবসায়ীরা অনেক ধরনের দুর্নীতি ও অনিয়মের মুখোমুখি হন। এ নিয়ে অভিযোগ করে কোনো প্রতিকার পাওয়া যায় না।’ ডিসিসিআই পরিচালক সেলিম আখতার খান বলেন, ‘অনেক সময় ব্যবসায়ীরা সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগসাজশের মাধ্যমে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে থাকে। এই যোগসাজশ ভাঙতে হবে।’


মন্তব্য

saad commented 24 days ago
how to get dudok chairman,s email or mobil