kalerkantho


বিএসইসি চেয়ারম্যান

বিনিয়োগকারী ও স্টেকহোল্ডারদের স্বার্থ রক্ষা করা হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



দেশের পুঁজিবাজার আকর্ষণীয় হওয়ায় বিদেশি প্রতিষ্ঠান কৌশলগত বিনিয়োগকারী হতে আগ্রহ প্রকাশ করছে উল্লেখ করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারমান খায়রুল হোসেন বলেছেন, ‘পুঁজিবাজারসংশ্লিষ্ট যেকোনো বিষয়ে বিনিয়োগকারী ও স্টেকহোল্ডারদের স্বার্থ রক্ষা করা হবে। আমি দায়িত্বে থাকা অবস্থায় বিনিয়োগকারী ও স্টেকহোল্ডারদের স্বার্থে সব কিছুই করা হবে।’

গতকাল বুধবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে একটি হোটেলে পুঁজিবাজার বিটের সাংবাদিকদের জন্য দিনব্যাপী এক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সংবাদপত্র ও টেলিভিশনের সাংবাদিকদের নিয়ে ‘অলটারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ইন বাংলাদেশ : এ নিউ এভিনিউ অব ইনভেস্টমেন্ট’ শীর্ষক কর্মশালার আয়োজন করে মসলিন ক্যাপিটাল ও ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্ট ফোরাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মসলিন ক্যাপিটালের এমডি ওয়ালিউল মতিন মারুফ ও সিএমজেএফের সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল। অলটারনেটিভ আইন নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন বিএসইসির পরিচালক মাহমুদুল হাসান।

খায়রুল হোসেন বলেন, “বিএসইসি বিগত কয়েক বছরে পুঁজিবাজারকে স্থিতিশীল ও আইনগত কাঠামো শক্তিশালী করতে অনেক আইন প্রণয়ন করেছে। বিনিয়োগকারী ও স্টেকহোল্ডারদের স্বার্থ সুরক্ষায় কাজ করেছে। বিশ্বব্যাপী ‘এ’ ক্যাটাগরির পুঁজিবাজার হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। বিনিয়োগের পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ায় বিদেশি প্রতিষ্ঠান পুঁজিবাজারের কৌশলগত বিনিয়োগকারী হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। সাত বছরের দায়িত্ব পালনকালে চেষ্টা করেছি বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষার্থে। কোনোভাবেই বিনিয়োগকারী এবং স্টেকহোল্ডারদের স্বার্থ বিসর্জন দেওয়া হবে না।” ভেঞ্চার ক্যাপিটাল নিয়ে তিনি বলেন, পুঁজিবাজার বিকাশে ভেঞ্চার ক্যাপিটাল অন্যতম একটি পণ্য। এতে নতুন উদ্যোক্তাদের আইডিয়াকে বাস্তবে রূপদান করা সম্ভব। আমেরিকাতে ফেসবুক, জেরক্স, ইন্টেলের মতো কম্পানি খ্যাতি অর্জন করেছে এই ভেঞ্চার ক্যাপিটালের মাধ্যমে। ওয়ালিউল মারুফ মতিন অলটারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।



মন্তব্য