kalerkantho


জাতীয় সমাজসেবা দিবস আজ

ভাতা বণ্টনে তদারকির পরামর্শ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বয়স্ক, বিধবাসহ বিভিন্ন ধরনের দুস্থদের ভাতা আগের চেয়ে বেড়েছে জ্যামিতিক হারে। সরকারের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানালেও অনিয়ম বন্ধে কঠোর তদারকির সুপারিশ করছেন বিশ্লেষকরা। দুস্থ ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর অধিকার রক্ষার প্রত্যয় সামনে রেখে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় আজ মঙ্গলবার জাতীয় সমাজসেবা দিবস পালন করতে যাচ্ছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আনুষ্ঠানিকভাবে সমাজসেবা দিবসের কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন। দিবসটি উপলক্ষে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে সমাজসেবা অধিদপ্তর প্রাঙ্গণে চার দিনের মেলা শুরু হচ্ছে। উপকারভোগী ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার উৎপাদিত পণ্য নিয়ে এ মেলা বসবে। এ ছাড়া রয়েছে দিবসটি পালনে নানা কর্মসূচি।

এদিকে গবেষণায় দেখা গেছে, সরকারের উদ্যোগে সমাজকল্যণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে বয়স্ক, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা, অসচ্ছল প্রতিবন্ধী, প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী, হিজড়া, বেদে ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর প্রায় ৬০ লাখ ব্যক্তিকে ভাতা বা উপবৃত্তির আওতায় আনা হয়েছে। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় বয়স্ক ভাতাভোগী বেড়ে ৩৫ লাখ হয়েছে। চলতি অর্থবছরেই তিন লাখ ৫০ হাজার বয়স্ক, দেড় লাখ বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা, ৭৫ হাজার অসচ্ছল প্রতিবন্ধীকে ভাতা সুবিধা এবং ১০ হাজার প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তির আওতায় আনা হয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অধীনে থাকা এসব ভাতার মধ্যে ১৬ থেকে ২০ শতাংশ সঠিক ব্যক্তি পায় না।

সমাজসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ নুরুল কবির বলেন, দুস্থ ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর মধ্যে জ্যামিতিক হারে উপকারভোগী বেড়েছে, অর্থের অঙ্কও বেড়েছে। গত অর্থবছরে বয়স্ক ভাতা পেয়েছেন ৩১ লাখ ৫০ হাজার ব্যক্তি। বর্তমান অর্থবছরে পাচ্ছেন প্রায় ৩৫ লাখ প্রবীণ। সাড়ে সাত লাখ বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা ভাতা পেতেন। এবার পাচ্ছেন আট লাখ ৬৫ হাজার। আগে সাড়ে সাত লাখ অসচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা পেত, এবার পাচ্ছে আট লাখ ২৫ হাজার। মারণব্যাধি আক্রান্ত ব্যক্তিদের অনুদান দেওয়া হতো ৩০ কোটি টাকা, তা বেড়ে হয়েছে ৫০ কোটি টাকা। আগে ছয় হাজার ব্যক্তিকে দেওয়া হতো, এবার দেওয়া হবে ১০ হাজার ব্যক্তিকে।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, ‘তদারকি ও ধারণাগত ভিত্তি সঠিক থাকলে লক্ষ্য পূরণ হয়। ২০১১ সালে গবেষণা করেছিলাম। তাতে ভাতাসহ বিভিন্ন সুবিধার উপকারভোগীর ১৬ থেকে ২০ শতাংশই পায় না বলে তথ্যচিত্র উঠে এসেছিল। সরকার ভাতাভোগী বাড়িয়েছে, অর্থের অঙ্কও বেড়েছে কোথাও। এখন দরকার হবে কঠোর তদারকি।’

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় ও সমাজসেবা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৭-৯৮ অর্থবছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চার লাখ বয়স্ক ব্যক্তিকে জনপ্রতি মাসিক ১০০ টাকা হারে বয়স্ক ভাতা দেওয়ার প্রথা চালু করেন। বর্তমানে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিভিন্ন ধরনের ভাতা ও উপবৃত্তির আওতায় আনা হয়েছে প্রায় ৬০ লাখ ব্যক্তিকে। বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী, হিজড়া, বেদেসহ অনগ্রসর জনগোষ্ঠী এসব সুবিধা পাচ্ছে। চলতি অর্থবছরে বয়স্ক ভাতা খাতেই বরাদ্দ আছে দুই হাজার ১০০ কোটি টাকা।



মন্তব্য